২০৩০ বিশ্বকাপ আয়োজক হতে চায় যে ৪ দেশ

উরুগুয়ে ও আর্জেন্টিনা ২০৩০ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনের আগ্রহ প্রকাশ করেছিল। গতবছর তাদের সঙ্গে যৌথ আয়োজক হওয়ার আগ্রহ দেখায় প্যারাগুয়েও। তবে চলতি বছর তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে চিলিও।

যার ফলে ল্যাটিন আমেরিকার এ চার দেশ বিশ্বকাপ আয়োজক হওয়ার জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। বুধবার বুয়েন্স আইরেসে চার দেশের প্রেসিডেন্টদের সভা শেষে বিষয়টি আরো একবার জানিয়েছে তারা।

আগামী ২০৩০ সালে ১০০ বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের। আর এ কারণেই প্রথম বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্ট বিশ্বকাপ ঘরে ফেরাতে চাইছে। বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য স্থানীয় কমিটি তৈরির সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন চার দেশের প্রেসিডেন্ট। আগামী ৮ এপ্রিল বুয়েন্স আইরেসেই পরবর্তী সভায় বসবে তারা। সেখানে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ে ওপেনিং ম্যাচ, দুটি সেমিফাইনাল এবং ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে কোন দেশের কোন ভেন্যুতে।

কনমেবোলের সভাপতি আলেহান্দ্রো দোমিনগুয়েজের সঙ্গেও কথা বলেছেন চার দেশের প্রেসিডেন্ট। সভা শেষে বিষয়টি জানিয়েছেন কনমেবোলের সভাপতি। ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ হওয়ার দৌড়ে ল্যাটিন আমেরিকার এই চারটি দলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে আফ্রিকা ও ইউরোপের দেশ। আফ্রিকা থেকে এককভাবে মরক্কো এবং ইউরোপ থেকে যৌথ আয়োজকের মর্যাদা পেতে লড়বে গ্রেট ব্রিটেন ও আয়ারল্যান্ড। এছাড়া বুলগেরিয়া, গ্রিস, রোমানিয়া ও সার্বিয়াও যৌথভাবে আয়োজক হতে চাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ১৯৩০ সালে প্রথম বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল উরুগুয়েতে। সেবার ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে ৪-২ গলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল স্বাগতিকরা। ২০২২ সালের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে কাতারে। পরের আসরের যৌথ আয়োজক কানাডা, যুক্রাষ্ট্র ও মেক্সিকো।

মানবকণ্ঠ/এএম