স্ত্রীর অধিকার না পেয়ে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজ ছাত্রীর ৪ দিন অনশনের পর এবার আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের বস্তুল গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

সূত্রে জানা যায়, বস্তুল গ্রামের ওই কলেজছাত্রীর (২০) সঙ্গে পার্শ্ববর্তী ছোট পওতা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য হাসান আলীর ছেলে মাসুদ রানার ৬ বছর থেকে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাসুদ রানা ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করে। গত ১৩ আগস্ট সোমবার মাসুদ রানার বিয়ের সংবাদ পেয়ে ওই কলেজছাত্রী তার বাড়িতে আসলে উধাও হয়ে যায় মাসুদ। পরে ৪ দিন মাসুদের বাড়ীতে অনশনের পর বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওসি ঘটনাস্থলে গিয়ে অনশনরত অবস্থায় কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করে তার বাবার জিম্মায় দেন। নিরুপায় হয়ে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

কলেজছাত্রীর বড় ভাই জানান, প্রতারক মাসুদের প্রেমে পড়ে আমার বোন সব হারিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। আমরা ওই প্রতারকের বিচার চাই।

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক আসিফ মাহমুদ বলেন, মেয়েটি বর্তমানে সুস্থ্য আছে। তবে চিকিৎসা চলছে।

মানবকণ্ঠ/এসএ