স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মিয়ানমার যাচ্ছেন কাল

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো, অনুপ্রবেশ বন্ধ করা ও দ্বিপাক্ষিক দুটো চুক্তি সই করতে কাল সোমবার মিয়ানমার সফরে যাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বাংলাদেশের ১৪ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন। তার মিয়ানমার সফরকালে অং সান সুচির সঙ্গে সাক্ষাৎসহ তিনটি বৈঠক হবে। তবে নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আরাকান রাজ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পরিদর্শনের বিষয়টি তাদের (মিয়ানমারের) সময়সূচিতে নেই। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের বিষয়ে মিয়ানমার চুপ থাকলেও হুট করে সফরসূচি পাঠিয়েছে। কাল ২৩ অক্টোবর সোমবার দুপুরে ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদল নিয়ে মিয়ানমার সফরে যাবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সেখানে দুই দেশের সিনিয়র কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক হবে। এসব বৈঠকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নাগরিকদের ফেরত নেয়া, তাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ করা, তাদের নিজ ভিটায় ফেরত নেয়ার বিষয়গুলোর ওপরই গুরুত্ব বাংলাদেশের। এ ছাড়া দুটি চুক্তি স্বাক্ষর হবে। একটি হবে জয়েন্ট ওয়ার্কিং সংক্রান্ত আর অন্যটি সীমান্তে দুই দেশের সীমান্ত রক্ষীদের যৌথ টহল বিষয়ক।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ২৫ অক্টোবর সকাল ৯টার দিকে সুচির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। সফরসূচিতে না থাকলেও তাকে (সুচি) রোহিঙ্গা জনপদে পরিদর্শনের ইচ্ছে জানাবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সে দেশ থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে দ্রুত ফেরত নেয়ার বিষয়ে তিনি আলোচনা করবেন। এ দিন বিকেলে প্রতিনিধি দলটির দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে মানবকণ্ঠকে বলেন, আন্তর্জাতিক মহলের চাপে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের নেয়ার লক্ষ্যে আলোচনার কথা বললেও তাদের আন্তরিকতার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে না। রোহিঙ্গাদের ওপর অমানবিক নির্যাতন এখনো অব্যাহত রয়েছে। যার কারণে এখন প্রতিদিন হাজার হাজার রোহিঙ্গা জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছে। এ ক্ষেত্রে মিয়ানমার সরকারের কোনো আন্তরিকতা দেখছেন না তারা। দুই দেশের আলোচনার মধ্য দিয়েই সমস্যার সমাধান হতে পারে বিশ্বাস বাংলাদেশের।

মিয়ানমার সফরে ১৪ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এই প্রতিনিধি দলে রয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুই সচিব, পুলিশ প্রধান, বিজিবি প্রধান, কোস্টগার্ড প্রধান, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের প্রধান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (রাজনৈতিক) ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডিজি (ইস্ট) সহ ১৪ জন।

মানবকণ্ঠ/এসএস