সুদানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির

সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির তার দেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। সেইসঙ্গে তিনি ফেডারেল সরকার ভেঙে দেয়ার পাশাপাশি সব রাজ্যের গভর্নরদের বরখাস্ত করেছেন।

শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেয়া এক টেলিভিশন ভাষণে বশির বলেছেন, “আমি দেশে এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছি।” এর আগে সুদানের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএসএস আভাস দিয়েছিল, প্রেসিডেন্ট বশির পদত্যাগ করতে পারেন।

শুক্রবারের ভাষণে প্রেসিডেন্ট বশির তাকে আরেক মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের ক্ষমতা দিয়ে সংবিধানে যে সংশোধনী আনা হয়েছিল তা স্থগিত করার জন্যও পার্লামেন্টের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন, দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য একটি মহল সরকার বিরোধী বিক্ষোভ পরিচালনা করছে। এর আগে অবশ্য ওমর আল-বশির এক বক্তৃতায় বলেছিলেন, সুদানে সরকার পরিবর্তন করতে চাইলে একমাত্র ব্যালটের মাধ্যমে তা করতে হবে।

গত ডিসেম্বরে সুদানে রুটি ও জ্বালানী তেলের ওপর সরকারি ভর্তুকি বন্ধ করে দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু হয়। কিন্তু পরে বিক্ষোভকারীরা বশিরের ৩০ বছরের শাসনের অবসান দাবি করে। বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর গত কয়েক সপ্তাহে অন্তত এক হাজার মানুষকে আটক করা হয়েছে। মানবাধিকার সংগঠনগুলো দাবি করছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত ৪০ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।

বিক্ষোভকারীরা অবশ্য প্রেসিডেন্ট বশিরের পদত্যাগ না করা পর্যন্ত বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন। ১৯৮৯ সালে এক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সুদানের ক্ষমতা গ্রহণ করেন ৭৫ বছর বয়সি ওমর আল-বশির। পরবর্তীতে কয়েকবার নির্বাচনের মাধ্যমে এই পদের দায়িত্ব নবায়ন করেন তিনি। 

মানবকণ্ঠ/এআর