সিভিতে যে বিষয়গুলো এড়িয়ে যাওয়া ভালো

সিভিতে যে বিষয়গুলো এড়িয়ে যাওয়া ভালোবায়োডাটা বা (CV) মোটামুটি সবাই লিখতে পারেন কিন্তু অনেকের সিভিতেই কিছু বিষয়ে গড়মিল হরহামেশাই দেখা যায়। চাকুরী সন্ধানীদের জন্য নির্ভুল বায়োডাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বায়োডাটাতে কিছু অতিরঞ্জিত বিষয় এড়িয়ে যেতে হয়।

চাকুরী সন্ধানীদের জন্য তার বায়োডাটা মানসম্মত হওয়া অত্যন্ত জরুরী। কেননা চাকুরীদাতার প্রার্থীকে ডাকা না ডাকা নির্ভর করে তার সিভিতে সংযুক্ত বিষয়বস্তুর উপরে।

বায়োডাটার শুরুতেই নিজের ক্যারিয়ারের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কি সংক্ষেপে তা উল্লেখ করতে হয়। এক্ষেত্রে অনেকেই অন্যের সিভি থেকে কপি করে থাকেন, তবে অনেকে জানেনই না কি লিখা আছে তাতে! এতে ভাইভা বোর্ডে গিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়! তাই কপি করলেও তা বুঝে নিজের লক্ষ্যের সাথে মিলিয়ে করাটা বাঞ্ছনীয়।

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রার্থীর অভিজ্ঞতা ও শিক্ষাগত যোগ্যতাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে বিধায় এমন প্রতিষ্ঠানে CV দিতে অবশ্যই এ বিষয়দুটি প্রথম দিকে/প্রথম পেজেই রাখতে হয়। ব্যক্তিগত পরিচয়ের বিষয়গুলো পরে রাখতে হয়।

প্রতিষ্ঠানভেদে কাজের ধরণ ভিন্ন। তাই একই গদবাধা বায়োডাটা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে না দিয়ে প্রতিষ্ঠান ও কাজের ধরণানুযায়ীবায়োডাটার দুই একটি অংশের ধরণও ভিন্ন করতে হয়।

অনেকেই বাহুল্য ও অপ্রয়োজনীয় বিষয়গুলো দিয়ে বায়োডাটাটিকে অতিমাত্রায় দীর্ঘ করে স্মার্ট করার চেষ্টা করেন যা নিয়োগকর্তা ও বাছাইকারীগণের জন্য বিরক্তির কারণ হয়ে যায়। আর এগুলোর ভীড়ে আপনার গুরুত্বপূর্ণ কোন বিষয়ও বাছাইকারীর চোখ এড়িয়ে যেতে পারে। এই কারনে কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট না হলে আপনার সাঁতার কাটতে জানা, বন্ধু-বান্ধবীদের সাথে ঘুরতে ভাল লাগা জাতীয় বিষয়গুলো এড়িয়ে চলাই শ্রেয়!

বায়োডাটাতে অতিরঞ্জিত কিছু না লেখা একদমই অনুচিত! লিখলেন- MS Word,Excel,Access, Power point এ দক্ষতা আছে, ভাইভা বোর্ডে ধরা হলো- Power point দিয়ে কি ধরনের কাজ করতে হয়? পারলেন না! লিখলেন- English speaking এ আপনি Excellent! অথচ এই লেখা চোখে পড়ে আপনাকে ভাইভা বোর্ডে বলতে বলা হলো- আমি একজন চাকুরী প্রার্থী, ইংরেজীতে বলুন? ভূল জবাব দিলেন! আপনি অন্য বিষয়গুলোতে ভাল করলেও শুধুমাত্র এই ভূল Answer এর কারনেই আপনাকে Select নাও করতে পারেন। তাই যতটুকু পারেন ততটুকুই লিখা উচিত।

যে বিষয়ে আপনার কোন অভিজ্ঞতাই নাই অথচ সার্কুলারে অভিজ্ঞতা চাওয়াতে আপনি কোথাও থেকে অভিজ্ঞতার সনদ যোগাড় করে সিভিতে উল্লেখ করে দিলেন বোর্ড মেম্বার এ বিষয়ে অতি সাধারণ প্রশ্ন করলেন, আপনি মুখও খুলতে পারলেন না যা ঐ ভরা সভায় আপনার জন্য মহা বিব্রতকর বিষয় হয়ে দাঁড়াতে পারে!

প্রতিষ্ঠান ও পদ সংশ্লিষ্ট Internship, Training ও কোন Achievement থাকলে তা অবশ্যই লিখবেন।
বানান ও Grammatical ভুল যেন না হয় সে বিষয়ে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে। কোন ভুল বা ভূয়া তথ্য দেয়া এবং নিজের বিষয়ে প্রকাশ উচিত কোন বিষয় গোপন করা একেবারেই ঠিক না। কারণ এমন কোন বিষয় পরে কোন পর্যায়ে প্রকাশ পেলে মানহানিকর এবং চাকুরীটাও হারাতে হয়!

অনেকেই সবশেষে নামের উপরে স্বাক্ষর করতে ভুলে যান! নিজের স্বাক্ষর না থাকলে তা সত্যতার প্রমাণ বহন করে না এবং আপনি একজন অসতর্ক ব্যাক্তি এটি তার নিদর্শন বহন করে।

যার Reference দিবেন সে যেন অবশ্যই আপনাকে চিনে-জানে এবং অবশ্যই তাঁর অনুমতি নিয়ে দিতে হয়। মনে রাখতে হবে-CV হচ্ছে চাকুরীদাতার নিকট চাকুরী প্রার্থীর First look! তাই এই গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটি একটু যথাযথভাবে লিখেই উপস্হাপন করা দরকার।

লেখক: মুহাম্মদ আব্দুল জববার
সংস্কৃতি ও মানবসম্পদ কর্মী