সাকিব খেললে শতভাগই দেবে বিশ্বাস মাশরাফির

সাকিব খেললে শতভাগই দেবে বিশ্বাস মাশরাফিরএশিয়া কাপে খেললে সাকিব তার শতভাগই দেবেন বলে বিশ্বাস করেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ‘২০-৩০ শতাংশ’-এর চেয়ে অনেক বেশি ফিট বলে মনে করেন হেড কোচ স্টিভ রোডস।

সাকিবকে রেখেই ১৬ সদস্যের এশিয়া কাপের স্কোয়াড ঘোষণা করেছিল বিসিবি। হজ্ব থেকে ফিরে এ বিষয়ে কথা বলে আবার যুক্তরাষ্ট্রে নিজের পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে গেছেন এই অলরাউন্ডার। তবে এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, এ মুহুর্তে ২০-৩০ শতাংশ ফিট তিনি। অনুশীলন থেকে দূরে আছেন, কিভাবে ব্যাটিং বোলিং করবেন, সেটাও নিশ্চিত নন।

হেড কোচ রোডস আপত্তি করছেন এ কথাতেই, আমি বিশ্বাস করি না, সে মাত্র ২০-৩০ শতাংশ ফিট। আমার মনে হয়, ‘সে এর চেয়ে অনেক বেশি ফিট। এসব কথা আসলে হেডলাইনের কাটতি বাড়ায়। আমি নিশ্চিত, সাকিব এর চেয়ে অনেক বেশি ফিট। যে অবস্থায় থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিংয়ে চমৎকার ক্রিকেট খেলেছে, তার চেয়ে ভিন্ন কোনো অবস্থায় নেই সে।’

‘সবাই জানে, তার অস্ত্রোপচার লাগবে। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলেই সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এশিয়া কাপ বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সে পুরো ফিট নয়। তবে সে যদি ক্যারিবিয়ানের মতো একটু করে হলেও খেলে, সেটাই বাংলাদেশের জন্য অনেক পাওয়া হবে। এই ছেলেটা অসাধারণ একজন ক্রিকেটার। সাকিব যদি ৬০-৭০ শতাংশ ফিটও হয়, তবুও আপনি তার কাছ থেকে অনেক কিছু পাবেন।’

আর সাকিব খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এমন মনে করে ব্যাপারটা তার ওপরই ছেড়ে দিতে চাইছেন মাশরাফি, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিব যখন খেলেছে ব্যাটিংয়ে… নিঃসন্দেহে ওই সব খুব ভাল বুঝতে পারবে ও কেমন করেছে। সব মিলিয়ে যদি পারফরম্যান্স দেখেন, আমাদের জেতার জন্য খুব কার্যকরি ছিল পারফরম্যান্সটা। আমার কাছে মনে হয় অতটুকু সুস্থ থাকলে যথেষ্টর চেয়েও বেশি।

‘নিঃসন্দেহে সিদ্ধান্ত তো সাকিবের। এখানে কারো কোনো হাত নাই। সে নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাই এখানে কোনো অজুহাতের জায়গা নাই। সে যখন খেলবে আমি নিশ্চিত সে তার শতভাগ দিবে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর কন্ডিশনিং ক্যাম্প বা অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেননি সাকিব। এই ছুটিটা তার ক্রিকেটে আরো সাহায্য করবে বলেই মনে করেন রোডস, ‘সাকিব ড্রেসিংরুমে তার বাকি সহকারিদের কাছে খুবই সম্মানীয়। এটা একটা দিক। তারা সাকিবকে বোঝে ও সম্মান করে। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো তো গুরুত্বপূর্ণ। সবাই বুঝতে পারে, সাকিব অনেক ক্রিকেট খেলে। সে শুধু ব্যাটিং করে না। বোলিং করে, ফিল্ডিং করে, অধিনায়কত্ব করে তাও আবার সব ফরম্যাটে।’

‘সে ঠিক লাইন-লেংথটা জানে। সবসময়ই অনুশীলন করতে হবে, এমন কিছু না। অনুশীলন ছাড়াই কেমন ক্রিকেটার সে হতে পারে, এটা ক্যারিবিয়ানে দেখা গেছে। সে সচেতন একটা ছেলে, সে জানে তাকে কখন কোথায় থাকতে হবে। আমি আত্মবিশ্বাসী, (তার অনুপস্থিতি) প্রভাব ফেলবে না।’

মানবকণ্ঠ/ডিএইচ