নবাবগঞ্জে ৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়

সরকারিকরণ হলেও ভবন না থাকায় পাঠদান ব্যহত

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে দ্বিতীয় ধাপে ৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণ ও শিক্ষকদের বেতন ভাতা পেলেও ভবন নির্মাণ না হওয়ায় শিক্ষার্থীদের পাঠদানে ব্যহত হচ্ছে।
উপজেলা প্রাথমিক কর্মকর্তা দপ্তর সূত্রে জানা গেছে দ্বিতীয় ধাপে উপজেলার ৮নং মাহমুদপুর ইউনিয়নের কমিউনিটি স্কুল কড়াইবাড়ী, জয়পুর ইউনিয়নের চামুন্ডা, ৭নং দাউপুর ইউনিয়নের লাউগাড়ী, ৫নং পুটিমারা ইউনিয়নের কুড়াহার, ৮নং মাহমুদপুর ইউনিয়নের ভেবটগাড়ী আশ্রয়ন, মহিষবাতান, হারিরামপুর ছাতনীপাড়া জাতীয়করণ হয়েছে। ইতোমধ্যেই শিক্ষকেরা সরকারি বেতনভাতা পেয়েছেন। ভবনগুলো এতো জরাজীর্ণ যেখানে শিক্ষার্থীরা শুকনো মৌসুমে রোদে তাপে আর বর্ষাকালে পানিতে ভিজে ক্লাস করতে হয়। এর ফলে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়মূখী হতে অনাগ্রহ হয়ে ওঠে। কোনো কোনো বিদ্যালয় বাঁশের বেড়া নিম্নমানের ঢেউটিন ব্যবহার করে ঘর তৈরি করে পাঠদান হয়ে থাকে।
একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, বিদ্যালয় মঞ্জুরীর আগে উপযুক্ত ভবন থাকতে হবে। যেখানে বিদ্যালয় স্থাপিত হয়েছে শিক্ষা শতভাগ পরিবেশ অনুকূলে থাকতে হবে। উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে পরিদর্শন কর্মকর্তারা মোটা অঙ্কের টাকা গ্রাহণ করে বিদ্যালয় মঞ্জুরীর প্রত্যয়ন প্রদান করে থাকে। যার ফলে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো জাতীয়করণ হয়েছে।
লাউগাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আল্লামা শিবলী জানান, উপজেলা থেকে সরকার বরাদ্দ ও স্থানীয় ভাবে পাঠদানের কক্ষ নির্মাণ করা হচ্ছে।
হরিরামপুর ছাতনীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোর্শেদা জানান, বাঁশ ও টিন ক্রয় করে জরাজীর্ণ স্কুল ঘরটি পাঠদানের উপযোগী করতে নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে।
সরেজমিনে গেলে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নুরনবী, ৩য় শ্রেণীর শিক্ষার্থী রিফাত আলী, আনন্দ তির্কী তারা জানান, বিদ্যালয়ের ভালো ঘর না থাকায় কষ্ট করতে হচ্ছে। অচিরেই সরকারিভাবে নতুন ভবন নির্মাণের দাবি জানান তারা।
এবিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মো. শরিফ হোসেন জানান, নতুন করে ভবন নির্মাণের জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করা হয়েছে।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. বজলুর রশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি এ উপজেলায় যোগদানের পূর্বেই বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ করা হয়েছে। তিনি কয়েকটি বিদ্যালয় পরিদর্শন করে পাঠদানের উপযোগী করার জন্য বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিসহ শিক্ষকদের নির্দেশ দিয়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এমএম/এসএস

Leave a Reply

Your email address will not be published.