সব দলকে সমান অধিকার দিতে হবে : ফখরুল

যেন তেন নির্বাচন হলেই গণতন্ত্র হয় না এমন মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচনের সমান মাঠ তৈরি করতে হবে, সব দলকে সমান অধিকার দিতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তাকে কাজ করতে দিতে হবে। অন্যথায় তফসিল, নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না। শুক্রবার বিকেলে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদরাসা মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।

জনসভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকের বিশাল জনসমাবেশ প্রমাণ করে দেশের মানুষ মুক্তি চায়। খালেদা জিয়াসহ যারা আটক আছে তাদের মুক্তি চায়। দেশের মানুষ চায় নির্বাচনকালীন সরকার নিরপেক্ষ হতে হবে। তা না হলে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না-হবে না।

বিএনপির এই নেতা বলেন, এই মাঠে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে নিয়ে সমাবেশ করেছিলাম, সামনেই বসেছিলেন। আজ তিনি আসেননি, তাকে কারাগারে আটকে রেখেছে। যিনি গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছেন, তার ছেলেকে হারিয়েছে সেই নেত্রীকে অসুস্থ অবস্থায় আটকে রেখেছে। এই দেশের মানুষ তার মুক্তি চায়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা শেখ হাসিনার কাছে গিয়েছিলাম। কথা বলেছি। তারা কথা রাখেনি। প্রতিদিন গ্রেফতার হচ্ছে, মামলা হচ্ছে। আমাদের শপথ নিতে হবে, গণতন্ত্রকে মুক্ত করে দেশ নেত্রী খালেদাকে মুক্তি ও তারেক জিয়াকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য আন্দোলন করতে হবে।

সংসদ ভেঙে দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারে অধীনে নির্বাচন, খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন, ইভিএম বাতিল, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, গ্রেফতার বন্ধ করা, নির্বাচনে ম্যাজিট্রেসি পাওয়ার দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনসহ ৭ দফা দাবিতে ঐক্যফ্রন্টের এ সমাবেশ। জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল অলি আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.