সংঘাতের সময় মেসির মুখে রক্ত চলে আসে: পিকে

স্প্যানিশ লিগের ম্যাচে বার্সেলোনার মুখোমুখি হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। শনিবারের ওই ম্যাচে সান্তিয়াগো বার্নাবুতে বার্সার মহাতারকা লিওনেল মেসিকে চেনা রূপে দেখা যায়নি।

যদিও ম্যাচের ২৬ তম মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন ক্রোয়েট মিডফিল্ডার ইভান রাকিটিচ। সার্জিও রবাতোর্র বাড়ানো বল রিয়াল গোলকিপার কর্তোয়ার মাথার উপর দিয়ে বক্সের মধ্যে বল পাঠান তিনি।

শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে শুরু করেছিল মেসি নেতৃত্বাধীন দলটি। বিরতিতে যাবার আগের মুহূর্তে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলের অধিনায়ক একে ওপরের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়ান।

বল দখল করতে গিয়ে রিয়াল দলপতি সার্জিও রামোসের কনুই মেসির মুখে লাগে। এসময় আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পর রামোস এসে মেসিকে টেনে উঠাতে চাইলে মেসি তার দিকে তেড়ে যান। এসময় একে অপরের মাথায় মাথা ঠেকিয়ে নিজেদের শক্তি দেখানোর চেষ্টা করছিলেন। তবে দায়িত্বরত রেফারি সেখানে গিয়ে দুজনতে ছাড়িয়ে দেন।

এরপর আবারও মেসিকে কিছু একটা বলতে দেখা যায়। বার্সার হয়ে খেলা জেরার্ড পিকে, লুইস সুয়ারেজসহ অন্যরা এসে মেসিকে সামলে নেন। এসময় মেসি রেফারিকে দেখাচ্ছিলেন তার মুখের ভেতরটাও। ঠিক ওই সময় প্রথমার্ধ শেষ হয়ে গেলে দুই দলই মাঠ ছাড়ে।

ম্যাচ জেতার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে এসেছিলেন বার্সা ডিফেন্ডার পিকে। স্পেনের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী এই তারকা ঘটনাটিকে সংঘাত হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, ওই সময় মেসির মুখে রক্ত চলে এসেছিল। তবে এই সব কিছুকে খেলার অংশ, এমনটাই জানিয়েছেন পিকে। তিনি বলেন, এই তীব্রতা পরিমাপ করা হবে না। আমার সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক রয়েছে। তবে যখন আপনি মাঠের লড়াইয়ে নামের নিজের রংকে জেতানোর জন্য, তখন সবাই আপনার প্রতিপক্ষ।

বার্সেলোনা ২৬ ম্যাচে ৬০ পয়েন্ট অর্জন করে শীর্ষে আছে। ২৫ ম্যাচ খেলে ৫০ পয়ে‌ন্টে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। ২৬ ম্যাচে ৪৮ পয়ে‌ন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রিয়াল।

মানবকণ্ঠ/এএম