শ্যামল বণিক অঞ্জনের তিনটি কবিতা

শ্যামল বণিকউপলব্ধী

কতো ফাগুন গেলো চলে
বদলে যাবার কথা বলে।
হলাম নাতো মানুষ আজো
হলোনা ভয় ঘৃণা লাজও।
হলোনা যে উপলব্ধী
করলাম না আত্নশুদ্ধী
সুপ্ত রইলো বিবেক বুদ্ধি।
ঘুরছি শুধু বনবনিয়ে
চলছি ফিরছি হনহনিয়ে,
থাকতে দুচোখ
তবু অন্ধ
সত্য ন্যায়ের
দোয়ার বন্ধ।
নারীর নেশা
টাকার গন্ধে
ধারছিনা ধার
ভালো মন্দে,
যাচ্ছি ভুগে
দ্বীধা দন্দে।
ভাবছিনা হায় পরকালে,
মগ্ন আছি দাবার চালে।

——-

বাকপটুয়া

তুমি ভীষণ বাকপটুয়া
কথায় নেইতো জুড়ি
কথার মোহমায়ায় বেঁধে
বুকে চালাও ছুঁড়ি।
শ্রীমুখেতে মিষ্টি হেসে
মনটা করো জয়,
নরম কথায়
বরফ গলাও
করে অভিনয়।
তুমি যে এক কালনাগিনী
খুবই বিষধর,
বাকপটুয়া ঘাতক হয়ে
রবে গো অমর।

——-
মেঘবালিকা -৬

মেঘবালিকা
মেঘ সন্ধ্যায়
কোথায় দিলে ডুব?
মেঘবালিকা
দেখতে তোমায়
মন চাইছে খুব!
মেঘবালিকা
রেখেছিতো
তুলে সকল কাজ,
মেঘবালিকা
গল্পে গানে
কাটাবো ক্ষণ আজ।
মেঘবালিকা
গাইবে তুমি
গলা ছেড়ে গান,
কন্ঠে তোমার
ভিজিয়ে নেবো
মেঘ সন্ধ্যায় প্রাণ।

মানবকণ্ঠ/আরএ