শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই সাংস্কৃতিক ঘাটতি পূরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘অতীতের সামরিক-সাম্প্রদায়িক সরকারেরা দেশকে অন্ধকারের অতলে ঠেলে দিয়েছিল, সংস্কৃতি ও নৈতিকতা মার খেয়েছিল। শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশ আবারো গণতন্ত্র ও বিস্ময়কর উন্নয়নের পথে হাঁটছে, সংস্কৃতি ও নৈতিকতার ঘাটতি পূরণ করছে। আর চলচ্চিত্র হচ্ছে সেই ঘাটতি পূরণের অন্যতম অনন্য হাতিয়ার।’
গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকায় সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আগামী ৮ জুলাই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের প্রস্তুতিসভায় আয়োজক পরিষদের প্রধান উপদেষ্টার বক্তৃতায় মন্ত্রী একথা বলেন। বিশেষ উপদেষ্টা তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের উপস্থিতিতে সভাটি পরিচালনা করেন তথ্যসচিব আবদুল মালেক।
এবারের পুরস্কারটি এমন সময় দেয়া হচ্ছে যখন বাংলাদেশ উন্নয়নশীলদের কাতারে পা রেখেছে, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সফল উৎক্ষেপণের মাধ্যমে দেশের মহাকাশ যুগ শুরু হয়েছে বর্ণনা করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এবারের অনুষ্ঠান হবে অনন্য। প্রতিবারের মতো এবারো প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতি অনুষ্ঠানকে সার্থক করবে, বলেন তিনি।
তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, ‘ব্যতিক্রমী, আধুনিক, রুচিসসম্মত ও মানসম্পন্ন আয়োজনই আমরা প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে চাই।’ তথ্যসচিব বলেন, ‘সব উপকমিটি পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কাজটি সুন্দর করবে।’
প্রধান তথ্য অফিসার কামরুন নাহার, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আবুয়াল হোসেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও চলচ্চিত্র) মো. আজহারুল হক, চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমীর হোসেনসহ তথ্য মন্ত্রণালয় ও এর সংস্থার কর্মকর্তারা সভায় অংশ নেন।