শেখ হাসিনাকে ডাকসুর আজীবন সদস্যের প্রস্তাবে আপত্তি নুরের

শেখ হাসিনাকে ডাকসুর আজীবন সদস্যের প্রস্তাবে আপত্তি নুরের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) আজীবন সদস্য হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মনোনীত করা হয়েছে। তবে ডাকসু নির্বাচন ‘বিতর্কিত’ হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য পদ দেয়ার ব্যাপারে আপত্তি করেছেন ভিপি নুরুল হক নুর।

শনিবার ডাকসুর প্রথম কার্যকরী সভায় প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য করার প্রস্তাব তোলেন জিএস গোলাম রাব্বানী। ভিপি নুর ছাড়া বাকিদের সম্মতিক্রমে প্রস্তাবটি গৃহীত হয়।

প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবের বিষয়ে নুরুল হক নুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন সম্মানিত ব্যক্তি। এই বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে যে ডাকসু, সেখানে তার মতো সম্মানিত ব্যক্তিকে সদস্য করা ঠিক হবে না। তার কথার সঙ্গে একমত প্রকাশ করেন সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হুসেন।

ঢাবি উপাচার্য (ভিসি)আখতারুজ্জামান বলেন, যে প্রস্তাব উঠেছে তা আমরা গ্রহণ করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আজীবনের সদস্য করার বিষয়টি আগামী সভায় চূড়ান্ত করা হবে।

এর আগে শনিবার বেলা ১১টার দিকে ডাকসু ভবনের দ্বিতীয় তলায় ডাকসুর সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে ডাকসুর কার্যকরী সভা শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করার পর জিএস কেন্দ্রীয় সংসদের সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন।

সভা শেষে ডাকসু নেতারা ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে, শিখা চিরন্তন ও শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

উল্লেখ্য, প্রায় তিন দশক পর ১১ মার্চ ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে কেন্দ্রীয় ২৫টি পদের ২৩টিতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মনোনীত প্রার্থী জয়লাভ করেন। বাকি দুটি পদের মধ্যে ভিপি পদে জয়লাভ করেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর এবং সমাজসেবা সম্পাদক হিসেবে নুরের প্যানেলের আকতার হোসেন জয়লাভ করেন। আর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) নির্বাচিত হন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এবং সহ-সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হন ছাত্রলীগের ঢাবি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস