লিট ফেস্টে শিশুদের আকর্ষণ গ্রাফিক নোভেল মুজিব

লিট ফেস্টে শিশুদের জন্য ভিন্ন এক আকর্ষণ হয়ে আছে গ্রাফিক নোভেল মুজিব। গ্রাফিক নোভেল মুজিব বাংলায় পঞ্চম পর্ব প্রকাশিত হয়েছে এ বছর। অন্যদিকে গত বছর লিট ফেস্টে এই গ্রাফিক নোভেলের একটি পর্ব ইংরেজিতে প্রকাশিত হলেও এবারের আসরে ইংরেজিতে ছিল আরো তিনটি পর্ব। এ ছাড়া গ্রাফিক নোভেল মুজিব জাপানিজ ভাষায় অনুবাদ করেও প্রকাশ করেছে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)।

এ বিষয়ে ১০ নভেম্বর লিট ফেস্টে সিআরআই প্যাভিলিয়নে কথা বলতে গেলে জানা যায়, শিশুদের মাঝে দারুণ সারা ফেলেছে গ্রাফিক নোভেল মুজিব। সিআরআই-এর স্টলে বসেই অনেকে এই গ্রাফিক নোভেলটি পড়েছে। শিশুদের জন্য বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উপস্থাপনের এই ভিন্ন আইডিয়া নিয়ে আসেন তারই দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। বইটির প্রকাশক তিনি।

মুজিব গ্রাফিক নোভেলের পঞ্চম পর্বে দেখা যায়, ১৯৪৫ সালে অত্যন্ত জনপ্রিয় হওয়া সত্যেও শেখ মুজিবুর রহমানকে কিভাবে ছাত্রলীগের পদ থেকে বঞ্চিত করা হয়, এরপর ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত আর কোনো নির্বাচন পায়নি ছাত্রলীগ। এরপর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এবং যুদ্ধকে কেন্দ্র করে কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের কালোবাজারির কারণে দেশে অস্থিরতা তৈরি হয়। তার পরবর্তী সময়ে দেশের কিছু এমএলএ এবং খান বাহাদুরদের স্বার্থের টানাপোড়েনের কারণে ব্রিটিশ গভর্নরের কাছে ক্ষমতা চলে যায়। এসব কিছু দারুণভাবে নাড়া দেয় তরুণ শেখ মুজিবকে।’

এর আগে গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’-এর প্রথম খণ্ড প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৫ সালের ১৭ মার্চ, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে। সেখানে খেলাধুলা, পড়াশোনা ও চিকিৎসকের কাছ থেকে পালানো এবং প্রথমবারের মতো কারাবরণের মতো বিভিন্ন কৌতূহলোদ্দীপক কাজের পাশাপাশি দেশের প্রতি তরুণ বয়স থেকেই নিজের বিশ্বাসের পক্ষে দৃঢ় অবস্থান নিতে দেখা যায় কিশোর শেখ মুজিবকে।

দ্বিতীয় পর্বে বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির হাতেখড়ির পাশাপাশি তার প্রেরণা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠার বিষয়টি জানা যায়।

মুজিব-৩ এ বঙ্গবন্ধুর স্কুল ও কলেজের শিক্ষাজীবনের পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং দুর্ভিক্ষের সময় মানবিক ভূমিকার বিষয় উঠে আসে।

‘মুজিব-৪’ এ অল ইন্ডিয়া মুসলিম লীগ সম্মেলন শেষে তরুণ শেখ মুজিবের দিল্লির বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ভ্রমণ ও ১৯৪৪ সালে ছাত্রলীগের সম্মেলনে তার ভূমিকার বিষয়টি উঠে এসেছে।

‘মুজিব-৫’ এর কাজে নিবিড়ভাবে যুক্ত থেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গ্রাফিক নোভেলটি মূলত ১২ পর্বে তৈরির পরিকল্পনা করা হয়। ‘মুজিব-১’ প্রকাশিত হয় ২০১৫ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে। এরপর সিরিজের আরও তিনটি বই মুজিব-২, মুজিব-৩ ও মুজিব-৪ প্রকাশিত হয়। এর ধারাবাহিকতায় প্রকাশিত হলো ‘মুজিব-৫’।

সিআরআই-এর নির্বাহী পরিচালক সাব্বির বিন শামস জানান, ১২ খণ্ডের এই গ্রাফিক নভেলে শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক জীবন এবং স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে তার ‘বঙ্গবন্ধু’ হয়ে ওঠার গল্প ধাপে ধাপে উন্মোচিত হবে।

এই বইগুলো সংগ্রহ করতে [email protected] অথবা [email protected] ই-মেইলে যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়া এই নম্বরে (০১৮২৬০১৮৬৬৫) ফোন দিয়েও মুজিব গ্রাফিক নোভেলগুলো সংগ্রহ করতে পারেন।

মানবকণ্ঠ/আরএ