রোহিঙ্গাদের উসকানি দিতে খালেদা জিয়া কক্সবাজার যাচ্ছে: খালিদ

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

রোহিঙ্গাদের উসকানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতেই খালেদা জিয়া কক্সবাজার যাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, সরকারের প্রশাসন ও সেনাবাহিনী যখন রোহিঙ্গাদের একটি শৃঙ্খলার মধ্যে নিয়ে আসছেন, দুই মাস পর এখন রোহিঙ্গাদের দেখার নাম করে খালেদা জিয়া একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির জন্য কক্সবাজার যাচ্ছেন।

শনিবার বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসন কর্মসূচির অংশ হিসেবে, জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে প্রণোদনা ও কৃষি পুনর্বাসনে সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

কৃষকদের উদ্দেশ্যে খালিদ মাহমুদ বলেন, দেশের ৩৫টি জেলা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। লাখ লাখ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নিজে বিভিন্ন জেলায় গিয়েছেন, ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন। কৃষকদেরকে বিনামূল্যে সার ও বীজ দিয়েছেন। কিন্তু খালেদা জিয়া কোথাও বন্যার্তদের সহায়তায় এগিয়ে আসেনি। আজকে তিনি রোহিঙ্গাদের দেখতে যাওয়ার নাম করে নতুন ষড়যন্ত্র করছেন। অন্যান্য ষড়যন্ত্রের মতো তার এ ষড়যন্ত্রও অতি তাড়াতাড়ি ব্যর্থ হবে।

বাংলাদেশ ব্যর্থ রাষ্ট্র হয়ে গেছে- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে খালিদ বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নত দেশের যাত্রী। বিশ্বের মানবতাবাদী নেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ থেকে এখন উন্নত দেশের দিকে যাত্রা শুরু করেছে। পঁচাত্তরে জাতির পিতাকে হত্যার মাধ্যমে এ দেশকে বিএনপি-জামায়াত ব্যর্থ রাষ্ট্র বানাতে চেয়েছিল। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাদের সে ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর খুনী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধির পথে।

ফখরুলের উদ্দেশ্যে খালিদ আরো বলেন, স্বাধীনতাবিরোধীর রক্ত যার শরীরে, সেই ফখরুলের পক্ষেই প্রায় সব ক্ষেত্রে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বলা সম্ভব। আজকে দেশবাসীর কাছে তাদের ষড়যন্ত্রের রাজনীতি পরিস্কার হয়ে গেছে।

এদিন উপজেলার ১২০৫ জন কৃষকের মাঝে কৃষি প্রণোদনা ১ হাজার ৬০ জন কৃষককে পুনর্বাসনের আওতায় সার, কৃষি পণ্য, বীজ বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সারওয়ার মোর্শেদের সভাপতিত্বে পৌর মেয়র আব্দুস সবুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আফছার আলী উপস্থিত ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এসএম/এসএস