রাশিয়ার সঙ্গে পরমাণু চুক্তি বাতিল করতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর বিবিসি’র। এই সপ্তাহের শেষে যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বল্টন  মস্কো সফরে এই চুক্তি প্রত্যাহারের বিষয়ে আলোচনা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে

শুক্রবার সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, ইন্টারমিডিয়েট রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্স (আইএনএফ চুক্তি লঙ্ঘন করেছে রাশিয়া। সেজন্যই তারা বেরিয়ে আসতে চাইছেন। ওই চুক্তি অনুযায়ী স্থল থেকে উৎক্ষেপিত মধ্যপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ও ৫০০ থেকে ৫ হাজার ৫০০ কিলোমিটার দূরে আঘাত আনা সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কিন্তু ট্রাম্পের দাবি, ওই চুক্তি লঙ্ঘন করেছে রাশিয়া। আর যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়াকে এমন অস্ত্র ব্যবহার করতে দিবে না যার অনুমতি তাদের নেই।

ট্রাম্প বলেন, আমি জানি না প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা কেন এটা নিয়ে আলোচনা করেননি বা সরে আসেননি। রাশিয়া অনকেদিন ধরেই এই চুক্তির লঙ্ঘন করে আসছে।

২০১৪ সালে অবশ্য ওবামা একবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে আইএনএফ চুক্তি ভঙ্গের অভিযোগ এনেছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, নোভাটের-৯এম৭২৯ নামে মধ্যপাল্লার একটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি তৈরি করেছে রাশিয়া। এর মাধ্যমে খুব সহজেই ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর ওপর আক্রমণ চালাতে পারবে রাশিয়া।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের এমন ঘোষণার পর এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম আরআইএ নভস্তি রাশিয়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সূত্রের বরাত দিয়ে বলে, পুরো বিশ্বে একক ক্ষমতা বিস্তারের স্বপ্ন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের এমন পদক্ষেপ নিয়েছে যেখানে শুধু তারাই রাজত্ব করবে।

নোভাটের-৯এম৭২৯ নামে মধ্যপাল্লার একটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি তৈরি করেছে রাশিয়া। এর মাধ্যমে খুব সহজেই ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর ওপর আক্রমণ চালাতে পারবে রাশিয়া।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, অন্যান্য দেশের ‍তুলনায় রাশিয়ার এই অস্ত্র অনেক সস্তা। শুক্রবার নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের সামরিক আগ্রাসন থামাতেই যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের এই চুক্তি থেকে বের করে আনতে চাইছে।

মানবকণ্ঠ/এআর