যে কোনো সময় শুরু হতে পারে পরমাণু যুদ্ধ : জাতিসংঘ

বিশ্বে ভুলে পরমাণু যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়ছে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে জাতিসংঘের নিরস্ত্রীকরণ গবেষণা সংক্রান্ত ইন্সটিটিউট বা ইউএনডিআর। স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার ওপর অতি নির্ভরতার কারণে পরমাণু দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছে ইউএনডিআর। এতে বলা হয়েছে, ড্রোন, কৃত্রিম উপগ্রহ, নেটওয়ার্ক এবং সেন্সর নিয়ে গড়ে উঠেছে বর্তমানের সামরিক যোগাযোগ ব্যবস্থা। এতে পারস্পারিক গোপন আদান-প্রদান ব্যবস্থা সক্রিয় আছে। ফলে ভুল বোঝাবুঝি কারণে মহাপ্রলয় ঘটে যেতে পারে। খবর : এএফপির।
১৯৮৩ সালে এ রকম একটি ঘটনা ঘটেছিল। সোভিয়েত পরমাণু সতর্কীকরণ ব্যবস্থা মার্কিন আগাম হামলার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে। এতে বলা হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ছোঁড়া পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্র মস্কোর দিকে ছুটে আসছে। এ ব্যবস্থার দায়িত্ব নিয়োজিত ছিলেন লে কর্নেল স্তেইনস্লেভ প্রেত্রভ। তিনি সহজ যুক্তিতে বুঝতে পারেন যে হামলা হলে নিশ্চিত ভাবেই তার জবাব দেয়া হবে তাই মার্কিন হামলার আশঙ্কা সত্য নয়। যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে এমন আগাম হামলার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে বলে ধরে নেন তিনি। পরে তার এ ধারণ সত্য বলে প্রমাণিত হয়।
জাতিসংঘ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডারের সঙ্গে জটিল যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে এতে ভুলে পরমাণু যুদ্ধ শুরুর আশঙ্কা আরো বেড়েছে।
আমেরিকার যখন নিজ পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির ভবিষ্যৎ যাচাই করার কাজ শুরু করেছে এবং উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যখন গরম বাক্য বিনিময় চলছে তখন এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হলো।

মানবকণ্ঠ/এসএস