মুখ দেখে কাউকে মনোনয়ন দেবে না আওয়ামী লীগ

মুখ দেখে কাউকে মনোনয়ন দেবে না আওয়ামী লীগ

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কারো মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। চোখ বুঝে যোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন দেবেন বলে জানালেন তিনি।
গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেছেন বলে বৈঠক সূত্রে তথ্য জানা গেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক মন্ত্রী মানবকণ্ঠকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী করার ক্ষেত্রে কেবল দল নয় প্রার্থীর ব্যক্তিগত ইমেজকেও গুরুত্ব দেয়া হবে।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের এ মনোভাব প্রকাশ করে দলীয় প্রধান বলেন, নির্বাচনে জয়ের ক্ষেত্রে প্রার্থীর ইমেজ কাজ করবে ৭০ ভাগ। আর দলের ভোট থেকে কাজ করবে মাত্র ৩০ ভাগ। বিএনপিসহ অন্য দলেরও প্রার্থী বিজয়ের ক্ষেত্রে ৩০ থেকে ২৮ ভাগ কাজ করে। সুতরাং বিভিন্ন রিপোর্টের ভিত্তিতে যেসব প্রার্থীর জয়ের সম্ভাবনা থাকবে তাদেরই মনোনয়ন দেয়া হবে। এখানে দলে কার কি প্রভাব, কে কত নবীন বা প্রবীণ দেখা হবে না। প্রার্থীর ইমেজ প্রাধান্য পাবে। কারণ সরকার গঠনের ক্ষেত্রে আমাদের আসন দরকার। সেটা বিবেচনায় রেখে প্রার্থী মনোয়ন চূড়ান্ত করা হবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করতে আসনভিত্তিক দল থেকে রিপোর্ট নেয়া হচ্ছে। কেন্দ্রের একটি কমিটি প্রার্থী তালিকা করছে। নানা জরিপ করা হচ্ছে। এ ছাড়া বিভিন্ন সংস্থা থেকেও প্রতিবেদন নেয়া হচ্ছে। সর্বোপরি বিদেশি একটি সংস্থাকে দিয়েও একই কাজ করানো হচ্ছে। সম্মিলিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে যারাই এগিয়ে থাকবেন কেবল তারাই দলের প্রার্থী হবেন।

আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আর্কষণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, গত রোববার জাতীয় সংসদ ভবন কার্যালয়ে এরশাদ সাহেব এসেছিলেন। তার সঙ্গে আসন্ন নির্বাচন প্রসঙ্গে আমার কথা হয়েছে। আজ বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদের সঙ্গে এ নিয়ে কথা হবে।

আসন্ন নির্বাচনে দল ও জোটের বিষয়ে নিশ্চিত করতে পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আড়াই ঘণ্টা বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। ওই বৈঠকে শুধু আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী ও প্রবীণ নেতা শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

বর্তমান সংসদে রয়েছে এমন প্রতিটি দলের সঙ্গেই পৃথক পৃথক বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপির আন্দোলন কিংবা জোট গঠন নিয়ে মন্ত্রিসভায় আলোচনা না হলেও নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে ধরেই প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগ।

মানবকণ্ঠ/এসএস

Leave a Reply

Your email address will not be published.