সংসদে রাষ্ট্রপতির মধুর আক্ষেপ!

‘মুক্ত জীবনের স্বাদ আর নেয়া হলো না’

সুযোগ পেলেই পুরনো ঠিকানায় (জাতীয় সংসদ ভবন) আসেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ। সাতবারের এমপি, দু’বারের স্পিকার, এক বার করে ডেপুটি স্পিকার ও বিরোধী দলের উপনেতার দায়িত্ব পালন করা সংসদ অন্তপ্রাণ মানুষটিকে সংসদই টানে বার বার। সময় ও সুযোগ পেলেই সংসদে যেমন আসেন, তেমনি আসেন সংসদে তার সঙ্গে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিকদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করতে। মঙ্গলবারও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। আর এসেই স্বভাবসুলভ আড্ডার আমেজে জানালেন দ্বিতীয়বার রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরের মধুর আক্ষেপটিও। বললেন, ভেবেছিলাম ২৩ এপ্রিলের পর আবার মুক্তজীবন ফিরে যাব। কিন্তু সেটা তো আর হলো না।

মাগরিবের বিরতীর আগে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ সরাসরি সাংবাদিক লাউঞ্জে এসে সংসদ বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের খোঁজ-খবর নিলেন। নিজের ব্যক্তি জীবনের কথাও তুলে ধরলেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ। রাষ্ট্রপতি তার আত্মজীবনী লেখে শুরু করেছেন, অনেক দূর এগিয়েছেন, রাষ্ট্রীয় কাজের চাপে খুব বেশি সময় দিতে পারেন না। তবে আত্মজীবনী লেখে শেষ করব।

সাংবাদিক লাউঞ্জে আসার পর উপস্থিত সাংবাদিকরা তাকে দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতি হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানান। রাষ্ট্রপতি সাংবাদিকের একটি মধ্যাহ্নভোজের আমন্ত্রণের কথা জানান। শিগগিরই এর তারিখ জানাবেন বলে তিনি জানান। এ নিয়েও নানা হাস্যরসে মেতে ওঠেন রাষ্ট্রপতি। বললেন, মিষ্টি নয়, ফুল পেট খাওয়াব।

সংসদের আসার আগে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কনভোকেশনে দেয়া তার বক্তব্য নিয়েও গল্প করেন রাষ্ট্রপতি। বিভিন্ন কনভোকেশনে দেয়া বক্তব্য নিয়ে হাস্যরসের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি মেইন ডিশের সঙ্গে একটু চাটনি দেই আর কী?

মো. আব্দুল হামিদ আগামী ২৩ এপ্রিলের পর পুনরায় রাষ্ট্রপতি হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নিতে পারেন। তিনি প্রায় মিনিট বিশেক সময় কাটান সাংবাদিকদের সঙ্গে।

মানবকণ্ঠ/জেকে/এসএস