মিয়ানমারে রয়টার্স সাংবাদিকদের আপিল খারিজ, সাজা বহাল

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের আটক সাংবাদিক ওয়া লোন ও কিয়াও সো উ’র আপিল বাতিল করে সাত বছর কারাদণ্ডের সাজা বহাল রাখার আদেশ দিয়েছেন মিয়ানমারের একটি আদালত। শুক্রবার দেয়া এই রায়ে মিয়ানমারের আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে আটক দুই সাংবাদিক অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট বা দাফতরিক গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘন করেছেন। খবর আল জাজিরার।

সাংবাদিক ওয়া লোন ও কিয়াও সো উ’র আইনজীবীরা গত নভেম্বরে তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। তখন তারা জানায় যে ওই দুই সাংবাদিককে অপরাধী সাব্যস্ত করার মত প্রমাণ উপস্থাপিত হয়নি।

২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে গ্রেফতার হন রয়টার্সের এই দুই সাংবাদিক। গ্রেফতার হওয়ার আগে তারা রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা গণহত্যার উপর একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেন যেখানে তারা ১০ জনকে হত্যার ঘটনা তুলে ধরেন। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো সেই বর্বর নির্যাতনের ফলে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। 

গত বছর সেপ্টেম্বরে ইয়াঙ্গুনের একটি জেলা আদালত ওয়া লোন ও কিয়াও সো উ’র বিরুদ্ধে দাফতরিক গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘন করার অভি্যোগ এনে সাত বছরের জেল দেন। এরপর থেকেই আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারের ওপর চাপ বাড়তে থাকে । অনেকেই সাংবাদিক আটকের ঘটনাকে মিয়ানমারের ভঙ্গুর গণতন্ত্রের অংশ হিসেবে ব্যাখ্যা করেন। ইতিমধ্যে রোহিঙ্গাদের সংবাদ প্রকাশ করে কারাবরণের জন্য এই দুই সাংবাদিক টাইমস ম্যাগাজিন কর্তৃক পার্সন অফ দ্য ইয়ারে ভূষিত হয়েছেন।

তবে এই দুই সাংবাদিকের আটকের পর দেয়া মন্তব্যে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি বলেছিলেন বাকপ্রকাশের স্বাধীনতার সঙ্গে ওই দুই সাংবাদিকের জেল হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই। সাংবাদিক হিসেবে তাদের কারাদণ্ড দেওয়া হয়নি, তাদের কারাদণ্ড হয়েছে কারণ যে তারা দাফতরিক গোপনীয়তা আইন ভেঙেছে। 

মানবকণ্ঠ/এআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.