‘মালয়েশিয়ায় বৈধতা পাচ্ছেন অবৈধ বাংলাদেশিরা’

মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের বৈধ করার বিষয়ে সরকার বহুবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বলে সংসদকে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। মন্ত্রী জানান, বৈধ হওয়ার জন্য রিহায়ারিং কর্মসূচিতে নাম নিবন্ধনকারী কর্মী/শ্রমিকদের ভিসা প্রাপ্তির কার্যক্রম আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলমান থাকবে। যার মাধ্যমে তারা ভিসা গ্রহণ করে বৈধভাবে অবস্থান করতে পারবেন। সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে আওয়ামী লীগ দলীয় সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক বৈধ করার বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ২০১৪ সালে মালয়েশিয়া সফরকালে অবৈধ শ্রমিকদের বৈধ করার জন্য সে দেশের সরকারের কাছে অনুরোধ জানান। তার অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে মালয়েশিয়া সরকার ২০১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ‘রি-হায়ারিং প্রোগ্রাম’ চালু করে। যার মেয়াদ ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বরে শেষ হয়। একই সঙ্গে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হয় এই মর্মে যে, যারা সে দেশে (মালয়েশিয়ায়) অবৈধভাবে আছেন তাদের কোনো ধরনের শারীরিক শাস্তি ব্যতিত শুধু আর্থিক জরিমানা দিয়ে নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করতে পারবেন। বৈধ হওয়ার জন্য রিহায়ারিং কর্মসূচিতে নাম নিবন্ধনকারী কর্মী/শ্রমিকদের ভিসা প্রাপ্তির কার্যক্রম আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলমান থাকবে। যাতে তারা ভিসা গ্রহণ করে বৈধভাবে অবস্থান করতে পারবেন। এজন্য হাইকমিশন থেকে প্রতিনিয়ত চিঠি দিয়ে অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, রিহায়ারিং কর্মসূচিতে রেজিস্ট্রেশনসহ ব্যবস্থাপনার জন্য মালয়েশিয়ার ৩টি ভেন্ডার কোম্পানিকে দায়িত্ব দেয়া হয়। এই তিন কোম্পানির যেকোনো একটি কোম্পানিতে গিয়ে নাম রেজিস্ট্রেশন করার জন্য বাংলাদেশি নাগরিকদের অনুরোধ জানানো হয়। কোনো দালাল, এজেন্ট বা মধ্যস্বত্বভোগীর মাধ্যমে রিহায়ারিং কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ না করার ব্যাপারে তাদেরকে সর্তক করা হয়।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.