মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নিজেদের ভাগ্য উন্নয়নে নয়, মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করি বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতার সুফল মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সরকার কাজ করছে। আমরা দেশে দারিদ্র্যের হার ২১ শতাংশে নামিয়ে এনেছি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। যে যেখানেই দায়িত্ব পালন করবেন এই বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন। যা একটা সমাজকে ধ্বংস করে দেয়, একটা পরিবারকে ধ্বংস করে দেয়, সেটা যেন কোনোমতে না হয়। আমরা এতটুকু বলতে পারি আমরা দক্ষতার সাথে এগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি।

গণমাধ্যম নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক সময় অনেক পত্রিকা এটা-ওটা লেখে আর আমাদের অনেকে সেটা নিয়ে ঘাবড়ে যায়। আমি অন্তত এইটুকু বলতে পারি রাষ্ট্র পরিচালনায় আমি পত্রিকার লেখা পড়ে গাইডলাইন গ্রহণ করি না। আমি গ্রহণ করি আমাদের নিজস্ব চিন্তা ভাবনা, পরিকল্পনা এবং জ্ঞান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে ৩২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন দিয়ে সরকারের কার্যক্রম শুরু করেছিলাম। এখন আমরা ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জন করেছি। দেশের ৯৩ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে। আমরা যে লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছি, প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো জ্বালবো।
রাস্তা-ঘাটসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নে সরকার ব্যাপক কাজ করেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা জনগণের জীবনমানের উন্নয়নের জন্য কাজ করছি। যে কাজগুলো আমরা করেছি, যেন সেসব উন্নয়নকাজের ধারাবাহিকতা থাকে।

২০২১, ২০৪১, ২০৭১ ও ২১০০ সাল টার্গেট করে সরকারের কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার বয়স এখন ৭২ বছর। ২০৪১ সাল পর্যন্ততো বাঁচবো না। তবে সে পর্যন্ত দেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য যে নেতৃত্ব, তারা এখানেই (প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণকারীরা) প্রস্তুত।

মানবকণ্ঠ/এএম

Leave a Reply

Your email address will not be published.