মসজিদে হামলা: ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট বাতিল

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুক হামলায় ব্যাপক হতাহতের পর বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচটি বাতিল করা হয়েছে। শুক্রবার জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে হামলার ঘটনায় একটিতে বাংলাদেশের ক্রিকেট দল উপস্থিত ছিলেন। তবে এ ঘটনায় তাদের কারো কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। খবর এএফপির। 

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলে ওভালে তৃতীয় ও চূড়ান্ত টেস্ট ম্যাচটি শনিবার হওয়ার কথা ছিল। সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচে নিউজিল্যান্ড জয়ী হয়েছে।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্রধান নির্বাহী ড্যাভিড হোয়াইট বলেন, আমরা মর্মাহত এবং ব্যথিত। আমি নিশ্চিত, পুরো দেশ আমার মতো ব্যথিত। আমি বাংলাদেশের ক্রিকেট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা একমত হয়েছি যে, এ সময়ে এ খেলার আয়োজন করা উচিত হবে না।

নিউজিল্যান্ডের একটি মসজিদে জুমার নামাজের সময় এলোপাতাড়ি গুলিতে ৯ থেকে ২৭ জন নিহত হয়েছেন বলে স্থানীয় পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে। ২৮ বছর বয়সী হামলাকারী যুবক একজন অস্ট্রেলীয়।

হামলার সময় বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দল মসজিদটিতে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। কিন্তু তারা নিরাপদে সরে আসতে সক্ষম হয়েছেন। নিউজিল্যান্ড সফরে যেখানে তাদের শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলার কথা, তার কাছেই মসজিদটির অবস্থান।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ফেসবুক পেজে বলা হয়েছে, বন্দুক হামলার পর নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সব সদস্য নিরাপদে হোটেলে ফিরে এসেছেন। খেলোয়াড় ও টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বিসিবি অব্যাহত যোগাযোগ রাখছে।

হামলায় কতজন নিহত হয়েছেন, তা নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি পাওয়া যায়নি। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মুখপাত্র বলেছেন, ক্রিকেট দলের সদস্যরা নিরাপদে রয়েছেন। তবে তারা মানসিকভাবে আহত হয়েছেন। আমরা তাদের হোটেলের ভেতরেই থাকতে বলেছি।

ওপেনিং ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল টুইটারে বলেছেন, গোলাগুলি থেকে পুরো ক্রিকেট দল নিরাপদে ফিরতে পেরেছেন। এ এক ভীতিপ্রদ অভিজ্ঞতা। দয়া করে সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

মুশফিকুর রহিম বলেন, আলহামদুলিল্লাহ, ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে গোলাগুলি থেকে আল্লাহ আজ আমাদের রক্ষা করেছেন। আমরা সত্যিই খুব ভাগ্যবান। এমন ঘটনা আর দেখতে চাই না। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

মানবকণ্ঠ/এআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.