মন্ত্রিসভার আকার বাড়ছে

মন্ত্রিসভার আকার বাড়ছেক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর থেকেই বিভিন্ন চমক দিয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবার বাড়ানো হচ্ছে মন্ত্রিসভার আকার। ২৬ মার্চের পরই বাড়ছে এ সভার আকার। নতুন করে মন্ত্রী হচ্ছেন কমপক্ষে পাঁচজন। তবে টেকনোক্র্যাট কোটায় আসছে ‘নতুন মুখ’। এতে ঠাঁই পেতে পারেন দলটির প্রবীণ নেতারা। এ ছাড়া শরিকদের রাখার ব্যাপারেও চিন্তাভাবনা চলছে। এমনই তথ্য মানবকণ্ঠকে জানিয়েছেন সরকার ও আওয়ামী লীগের হাইকমাণ্ডের একটি সূত্র। জানা গেছে, যারা আগে মন্ত্রিত্বের ছোয়া পাননি; তারা এবার সুযোগ পেতে পারেন। আওয়ামী লীগ নেতাদের তালিকা ঠিক করা হলে শরিকদের রাখা, না রাখা নিয়েই মন্ত্রিসভা বাড়ার বিষয়টি দেরি করা হচ্ছে। তবে পাঁচজনের স্থলে নতুনদের সংখ্যা চারও হতে পারে। মন্ত্রীসভায় কারা আসবে বা কারা আসবে সবই ঠিক করবেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সূত্র মতে, টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের শুরু থেকেই সবার দৃষ্টি ছিল মন্ত্রিসভায়। সাধারণ জনসাধারণে জনপ্রিয় নেতাদের নিয়েই শেষ পর্যন্ত মন্ত্রিসভায় গঠন করা হয়েছিল। চমক হিসেবে নতুনদের আগমনেই ফুটে উঠেছে বর্তমান মন্ত্রিসভা। তবে এবারের মন্ত্রিসভায় পুরাতন অভিজ্ঞ সিনিয়র নেতা ও শরিক দলের নেতাদের বাদ দিয়ে গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান মন্ত্রিসভা তিন মাস পার না হতেই আবারো চমক নিয়ে আসছে সরকার। এবার শরিকদের রাখার চিন্তা করছে সরকার। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ ও সাগঠনিক পদসহ তৃণমূলের জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে এবার একাধিক ব্যক্তিকে ডাকা হতে পারে মন্ত্রিসভায়। পরিচ্ছন্ন ইমেজের দক্ষ নেতাদের তুলে আনা হবে। ২৬ মার্চের পর চিঠি পেতে পারেন নতুন মুখরা। বর্তমান মন্ত্রিসভা ঠিক রেখেই নতুনদের দায়িত্ব দেয়া হতে পারেÑ এমনটাই দৈনিক মানবকণ্ঠকে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

তবে এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ে শুরু হয়েছে আলোচনা। মন্ত্রিসভায় নতুন করে কারা স্থান পাচ্ছেন, কোন জেলা থেকে পাচ্ছেন, কী অবদানের জন্য পাচ্ছেন, সব আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে মন্ত্রিসভা। আগের সরকারে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন আর একাদশ সংসদে যারা বিভিন্ন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে ইতোমধ্যে দায়িত্ব পেয়েছেন, তাদের মধ্যে কারো মন্ত্রিসভায় নতুন করে যোগ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। প্রথম দফায় শরিক দলের কাউকে মন্ত্রিসভায় রাখা না হলেও দ্বিতীয় দফায় ১৪ দলের কাউকে মন্ত্রিসভায় যোগ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী বাদে ২৪ জন মন্ত্রীর মধ্যে নয়জনই নতুন মুখ। বাদ পড়ে ছিলেন আগের মন্ত্রিসভার সদস্য মতিয়া চৌধুরী, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, নুরুল ইসলাম নাহিদ, হানানুল হক ইনু, রাশেদ খান মেননসহ পুরাতন ৩৬ জন। নতুন মন্ত্রিসভায় ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী স্থান পেয়ে ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এএম