ভারতকে ৩১৪ রানের টার্গেট অস্ট্রেলিয়ার

ভারতকে ৩১৪ রানের টার্গেট ছুড়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১০৪ রান করেন খাজা। শুক্রবার রনচির ঝাড়খণ্ড রাজ্য ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

তবে দুর্দান্ত খেলেও আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। মাত্র ৭ রানের জন্য সেঞ্চুরির দেখা পাননি তিনি। পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই খেলায় জয় পাওয়া ভারতকে ট্রফি নিশ্চিত করতে হলে ৩১৪ রান করতে হবে।

প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। উদ্বোধনীতে ৩১.৫ ওভারে ১৯৩ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ও উসমান খাজা। বিনা উইকেটে ১৯৩ রান করা অস্ট্রেলিয়া, এরপর ৭০ রানের ব্যবধানে হারায় ৫ ব্যাটসম্যানের উইকেট।

সময়ের ব্যবধানে উইকেট পড়ে যাওয়ার কারণে সাড়ে তিনশ’র বেশি রান করার সম্ভাবনা জানানো অস্ট্রেলিয়া শেষ পর্যন্ত ৩১৩/৫ রানে ইনিংস সমাপ্ত করে।

ক্যারিয়ারের ১২তম সেঞ্চুরির অপেক্ষায় থাকা অ্যারন ফিঞ্চ, দুর্দান্ত খেলেও শেষ পর্যন্ত আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন। মাত্র ৭ রানের জন্য শতরানের দেখা পাননি।

ভারতীয় চায়নাম্যান বোলার কুলদীপ যাদবের স্পিনে বিভ্রান্ত হওয়ার আগে ৯৯ বলে ১০টি চার ও তিনটি ছক্কায় ৯৩ রান করে ফেরেন ফিঞ্চ। দুর্ভাগ্য তার, ক্যারিয়ারে এনিয়ে তিনবার নার্ভাস নাইনটিতে আউট হলেন। তার চেয়েও মজার ব্যাপার হলো, ভারতের বিপক্ষেই ক্যারিয়ারে তিনবার নার্ভাস নাইনটিতে আউট হলেন ফিঞ্চ।

ফিঞ্চের বিদায়ের পর সুবিধা করতে পারেননি অন্য ওপেনার উসমান খাজা। ক্যারিয়ারের ২৪তম ম্যাচে অভিষেক সেঞ্চুরি তুলে নেয়া উসমান ফেরেন শতরান পূর্ণ করার পর। রবিন্দ্র জাদের করা বলটিকে ফাইন লেগে ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেল নেয়ার মধ্য দিয়ে ১০৬ বলে শতরানের মাইলফলক স্পর্শ করেন খাজা।

সেঞ্চুরি করার পর নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি। মোহাম্মদ সামির বলে মিড উইকেটে দাঁড়িয়ে থাকা যশপ্রীত বুমরাহর হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ১১৩ বলে ১১টি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে ১০৪ রান করে ফেরেন উসমান খাজা।

৩১ বলে ৪৭ রান করে রান আউট হন ম্যাক্সওয়েল। ১২ বলে ৭ রান করে ফেরেন শন মার্স। আগের ম্যাচে দলের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৮ রান করা হ্যান্ডসকম্ব এদিন ফেরেন শূন্য রানে। শেষ দিকে মার্কু স্টইনিস ও অ্যালেক্স কেরির ৩৮ বলের অপরাজিত ৫০ রানের জুটিতে ৩১৩ রানে থামে অস্ট্রেলিয়া। ২৬ বলে ৩১ ও ১৭ বলে ২১ রান করেন মার্স ও কেরি।

মানবকণ্ঠ/এএম