বোল্টের হ্যাটট্রিকে পাকিস্তানকে হারাল নিউজিল্যান্ড

ট্রেন্ট বোল্টের দুর্ধর্ষ তৃতীয় ওভারেই নিউজিল্যান্ড ম্যাচটা শেষ করে দিয়েছিল পাকিস্তানের। আর ওই ধাক্কার পর ম্যাচে আর ফিরতে পারেনি পাকিস্তান। টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর আবুধাবিতে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেটি ৪৭ রানে জিতেছে নিউজিল্যান্ড।

জয়ের জন্য পাকিস্তানের দরকার ছিল ২৬৭ রান। আধুনিক ক্রিকেটে এমন লক্ষ্যকে খুব কঠিন বোলার উপায় নেই। কঠিন করে দিলেন আসলে বোল্টই।পাকিস্তান ইনিংসের তখন মাত্র তৃতীয় ওভার। ট্রেন্ট বোল্টের ১৪১ কিলোমিটার গতির প্রথম বলটি কোনোমতে পায়ে লাগিয়ে ১ রান নিলেন ইমাম উল হক। দ্বিতীয় বলটি আর আটকাতে পারলেন না ফাখর জামান, উড়ে গেল স্ট্যাম্প।

তৃতীয় বলে ওয়াইড ইয়র্কার। বাবর আজম ঠেকাতে গিয়ে লাগিয়ে দিলেন ব্যাটে, বল চলে গেল প্রথম স্লিপে দাঁড়ানো রস টেলরের হাতে।

চতুর্থ বলটি সরাসরি আঘাত হানে মোহাম্মদ হাফিজের প্যাডে। আবেদনে আঙুল তুলে দিতে ভুল করেননি আম্পায়ার। বলটি আঘাত করতো হাফিজের লেগ স্ট্যাম্পে। হয়ে গেল হ্যাটট্রিক।

ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসের তৃতীয় বোলার হিসেবে এই কীর্তি দেখালেন বোল্ট। তার আগে দেশের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন মরিসন আর শেন বন্ড।

বোল্টের গতিঝড়ে পরাস্ত হয়ে ৮ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারানো পাকিস্তান এরপর ঘুরে দাঁড়াতে চেয়েও পারেনি। সপ্তম উইকেটে সরফরাজ আহমেদ আর ইমাদ ওয়াসিম ১০৩ রানের জুটিতে আশা দেখিয়েছিলেন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি।

১৮৮ রানের মাথায় সরফরাজের উইকেটটি তুলে নেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। পাকিস্তান দলপতি ৬৪ রানে ফেরার পর ইমাদ ওয়াসিমও ৫০ করে আউট হয়ে যান। দলের রান তখন ২১৯। শেষ দুই উইকেটে আর একটি রানও যোগ করতে পারেনি পাকিস্তান। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ট্রেন্ট বোল্ট আর লুকি ফার্গুসন নেন ৩টি করে উইকেট। এর আগে রস টেলরের ৮০ আর টম লাথামের ৬৮ রানে ভর করে ৯ উইকেটে ২৬৬ করে নিউজিল্যান্ড।

মানবকণ্ঠ/এআর