দুর্বল হয়ে বাংলাদেশে আসছে তিতলি

বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের উডিষ্যা রাজ্যের গোপালপুরে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় তিতলি।এরপর ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশে আসার কথা থাকলেও পুরো শক্তি নিয়ে বাংলাদেশে আসার আশঙ্কা নেই। ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাবে সৃষ্ট নিম্নচাপের কারণে উপকূলীয়সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় হতে পারে ভারী বৃষ্টি। এমনটি জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়া অধিদফতরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে চার নম্বর সতর্কতা দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। আবহাওয়াবিদ নিঝুম আহমেদ বলেন, তিতলি বাংলাদেশে আঘাত হানার সম্ভাবনা নেই। তবে নিম্নচাপ আকারে আসবে। এর প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর আরও জানিয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত হারিকেনের তীব্রতা সম্পন্ন প্রবল ঘূর্ণিঝড় তিতলি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বৃহস্পতিবার ভোররাতে গোপালপুরের কাছ দিয়ে ভারতের উড়িষ্যা-অন্ধ্র উপকূল পার হয়েছে। এটি আরও উত্তর বা উত্তর-পশ্চিমে অগ্রসর হয়ে পরবর্তী দুই থেকে তিন ঘণ্টার মধ্যে উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

প্রবল এ ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ১২০ কিলোমিটার, যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রের নিকট সাগর উত্তাল রয়েছে বলে জানায় আবহাওয়া অধিদফতর।

মানবকণ্ঠ/এআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.