বাড়ি ফিরতে চায় আইএস’এ যোগ দেয়া ব্রিটিশ স্কুল ছাত্রী

আইএস জঙ্গিদের সঙ্গে যোগ দিতে যে তিন জন স্কুল ছাত্রী যুক্তরাজ্য ছেড়েছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন শামিমা বেগম। ৯ মাসের গর্ভবতী ১৯ বছর বয়সী এই নারী এখন ভুল বুঝতে পেরে আইএস জঙ্গিদের তথা কথিত খিলাফৎ থেকে দেশে ফিরতে চাইছেন। সংবাদ মাধ্যম টাইমস নিউজপেপারে দেয়া সাক্ষাতকারে শামিমা বেগম জানায়, যুদ্ধ ক্ষেত্রে থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছেন সে এবং সে তার আগত সন্তান নিয়েও দুশ্চিন্তায় রয়েছেন । শামিমা জানায় এর আগেও সে তার দুটি সন্তান হারিয়েছেন।

শামিমা এবং আরো ২ জন ব্রিটিশ স্কুল ছাত্রী ২০১৫ সালে সিরিয়ায় আইএস জঙ্গিদের সঙ্গে যোগ দিতে সিরিয়ায় যান। সিরিয়ায় রাকা শহরে পৌঁছানর পর তাদেরকে প্রত্যেককে আলাদা করে একা রাখা হয়। পরে শামিমাকে ডাচ আইএস যোদ্ধা ইয়াগো রিয়েদজকের সঙ্গে তাকে বিয়ে দেয়া হয় যিনি শামিমার চেয়ে ১২ বছরের বয়সে বড় ছিল। সাক্ষাতকারে শামিমা বলেন, আমি ১৫ বছরের সেই স্কুল ছাত্রী নয় যিনি ৪ বছর আগে বেথনাল গ্রিন থেকে পালিয়ে গিয়েছিল। শামিমা জানায় তার আরো দুই বান্ধবী কাদিজা সুলতানা এবং আমিরা আবাসেকেও অন্য আইএস জঙ্গিদের সঙ্গে বিয়ে দেয়া হয়। এদের মধ্যে সুলতানা রাকাতে বিমান হামলায় ২০১৬ সালে নিহত হন। তবে আবাসে এখনো বেঁচে থাকতে পারেন বলে জানিয়েছে শামিমা।

২০১৭ সালে মার্কিন সমর্থিত সিরিয় বাহিনী রাকা দখল করে। এখন প্রায় পুরো সিরিয়া থেকে আইএস জঙ্গিদের উৎখাত করে ফেলেছে মার্কিন সমর্থিত সিরিয় বাহিনী।

মানবকণ্ঠ/এআর