ওয়ালটনের চার দিনের আন্তর্জাতিক পরিবেশক সম্মেলন শুরু

‘বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ইলেকট্রনিক্স পণ্যের রাজধানী’

ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম আশরাফুল আলম বলেছেন, বিশ্বের ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদনকারীদের মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। প্রবৃদ্ধির এই ধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ইলেকট্রনিক্স পণ্যের রাজধানী।

তিনি বলেন, শুধু ডিস্ট্রিবিউটর, ডিলার, সাব-ডিলারই নন, ওয়ালটন পণ্যের সব ক্রেতাই এই উন্নয়নের অংশীদার। তারা সবাই ওয়ালটন পরিবারের সদস্য। ওয়ালটন ষোলো কোটি বাংলাদেশির প্রতিষ্ঠান। দেশের মানুষের সমর্থন নিয়ে আগামী ১০ বছরে ওয়ালটন বিশ্বের শীর্ষ ব্র্যান্ডে পরিণত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

শনিবার (২১ এপ্রিল) ওয়ালটন আয়োজিত চারদিনের পরিবেশক সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। দ্রুত পরিবর্তনশীল ইলেকট্রনিক্স ব্যবসার বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার প্রত্যয় নিয়ে শুরু গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হেড কোয়ার্টারে চার দিনের ওই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন দেশ-বিদেশের ৬ হাজারেরও বেশি ব্যবসায়ী।

সম্মেলনে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান এসএম শামসুল আলম বলেন, এক সময় জাহাজ ভর্তি করে ফ্রিজ, টিভি, এসিসহ নানা ইলেকট্রনিক্স পণ্য বাংলাদেশে আমদানি করতে হতো। কিন্তু ওয়ালটনের কল্যাণে এসব পণ্যের উৎপাদনে দেশ আজ স্বয়ংসম্পূর্ণ। এখন বাংলাদেশ থেকে জাহাজ ভর্তি করে এসব পণ্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে। ওয়ালটনের এ অগ্রযাত্রার সঙ্গী হওয়ার জন্য তিনি ডিস্ট্রিবিউটর, ডিলার, সাব-ডিলারসহ সকল ক্রেতাকে ধন্যবাদ জানান।

এর আগে সকালে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ওয়ালটনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এমদাদুল হক সরকার, এসএম জাহিদ হাসান ও হুমায়ূন কবির, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম ও মোহাম্মদ রায়হান, ফার্স্ট সিনিয়র অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর ফিরোজ আলম, ব্র্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন এবং চিত্রনায়ক আমিন খান প্রমূখ।

দেশি-বিদেশি ডিস্ট্রিবিউটর, ডিলার ও সাব-ডিলারদের আগমনে ওয়ালটন হেড কোয়ার্টারে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। তারা বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তি ও মেশিনারিজ সমৃদ্ধ ওয়ালটনের অত্যাধুনিক কারখানায় বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়া পরিদর্শন করেন।সম্মেলনে সারা দেশ থেকে ওয়ালটনের ২০টি অঞ্চলের ৬ হাজারেরও বেশি ডিলার ও সাব ডিলার অংশ নিচ্ছেন। রয়েছেন কয়েকজন আন্তর্জাতিক ডিসিট্রবিউটরও। ফলে এটি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে।

উদ্বোধনী দিনে অংশ নিয়েছেন ওয়ালটনের ঢাকা অঞ্চলের ১ হাজার ৩৬৭ জন ডিলার এবং সাব-ডিলার। ২২ এপ্রিল রোববার দ্বিতীয় দিনে যোগ দিচ্ছেন ঢাকার আশপাশের অঞ্চলের ১ হাজার ৩৯৩ জন ডিলার এবং সাব-ডিলার। তৃতীয় দিন সোমবার থাকছেন দেশের অন্যান্য অঞ্চলের ১ হাজার ২৮০ জন ডিলার এবং সাব-ডিলার। আর সম্মেলনের চতুর্থ দিনে অংশ নেবেন ২০ এরিয়ার ৮৮৭ জন ডিস্ট্রিবিউটর। সম্মেলনে প্রতিদিনই থাকছে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মানবকণ্ঠ/এএএম