বাংলাদেশে কোনো সন্ত্রাসীকে আশ্রয় দেয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশে কোনো সন্ত্রাসীকে আশ্রয় দেয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের মাটিতে কোনো সন্ত্রাসী সংগঠনকে আশ্রয় দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, সন্ত্রাসবাদের প্রতি আমাদের জিরো টলারেন্স অব্যাহত থাকবে।

অন্যদিকে বাংলাদেশের উন্নয়ন ভারতের জন্য খুশি ও প্রেরণার উল্লেখ করে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, বিগত পাঁচ বছরের মতো আগামী পাঁচ বছরও দুই দেশের সম্পর্ক আরো উচ্চতায় পৌঁছাবে।

সোমবার দুপুরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী নিজ নিজ কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সে চারটি প্রকল্প যৌথভাবে উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন। চার প্রকল্পের একটিতে বিআরটিসিকে ১ হাজার ১০০ বাস-ট্রাক সরবরাহ করবে ভারত।

শেখ হাসিনা বলেন, নিরাপত্তা, বাণিজ্য, বিদ্যুৎ, যোগাযোগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে যে সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত হয়েছে ভবিষ্যতেও তা অব্যাহত থাকবে।

দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভারত সরকারের অনুদানে তৈরি জামালপুর, শেরপুর, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধন করেন।

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া পৌরসভায় ১১টি পানি শোধনাগার এবং বাংলাদেশে সার্কের ন্যাশনাল নলেজ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ প্রকল্পও উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি। নরেন্দ্র মোদি আশা প্রকাশ করেন, উদ্বোধন করা প্রকল্পগুলো জনজীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

ভারত ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সহযোগিতা ও বন্ধুত্বপূর্ণ মনোভাবের জন্য পরস্পরকে ধন্যবাদ জানান। ভারতের কাশ্মিরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

মানবকণ্ঠ/এসএস