বাংলাদেশিদের জন্য উন্মুক্ত হলো চীনের চিকিৎসা সেবা

বাংলাদেশি রোগীদের জন্য এবার চিকিৎসা সেবার দ্বার উন্মুক্ত করল দূর প্রাচ্যের দেশ চীন। এখন থেকে বাংলাদেশিরা মেডিকেল ভিসার জন্য দেশটিতে আবেদন করতে পারবেন। বুধবার সন্ধ্যায় হোটেল রেডিসনে চীনা দূতাবাস বাংলাদেশি রোগীদের জন্য আন্তর্জাতিকমানের চিকিৎসা সেবার উদ্বোধন করে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত চাং চুও।

চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, চীন বাংলাদেশিদের জন্য চিকিৎসা, পর্যটনসহ সম্পর্ক জোরদারে নতুন নতুন সুযোগ সৃষ্টিতে কাজ করছে। চীনের চিকিৎসা ও ওষুধ আধুনিক ও উন্নত মানের। সেগুলোর খরচ যুক্তরাষ্ট্র, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের তুলনায় অনেক কম।

তিনি বলেন, চীনে অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা পর্যটন ও চিকিৎসা সেবা দুটোই দিয়ে থাকে। চীনের ঐতিহ্যবাহী চিকিৎসা ব্যবস্থাও বেশ কার্যকর ও নামকরা। পশ্চিমা রোগীদের কাছে এর গুরুত্ব আছে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ থেকে কুনমিং ও গুয়াংজু আকাশ পথে মাত্র দু’ঘণ্টার পথ। সেখানের আবহাওয়াও বাংলাদেশের মতো। চীন ও বাংলাদেশ চিকিৎসা-পর্যটন খাতে সহযোগিতার ভবিষ্যত চমৎকর। আমরা আন্তরিকভাবে আশা করি, আমাদের দুই দেশের জনগণ বেশি বেশি সফর করে বন্ধুত্বের গল্প বলতে পারবে।

আরভিং গ্রুপের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ঘনিষ্ঠ ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এবং দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা জোরদারের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। অনুষ্ঠানে ২০ জন রোগীকে চীনা দূতাবাসের অর্থায়নে দেশটিতে চিকিৎসা সেবা নেয়ার সুযোগ পেয়েছেন। এ সময় চীনা রাষ্ট্রদূত তাদের চীন সফরের আমন্ত্রণপত্র হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশের আরভিং গ্রুপ এবং চায়না ন্যাশনাল ট্যুরিস্ট অফিস (সিএনটিও) বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো এগিয়ে নেয়ার কাজ করছে। আরভিং গ্রুপের চেয়ারম্যান এইচ বি এম লুত্ফর রহমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এএম