বশেমুরবিপ্রবিতে শুরু হলো ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্ট আপ’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) আইসিটি ডিভিশনের আইডিয়া প্রজেক্ট ও ইয়াং বাংলার ব্যবস্থাপনায় দুই দিনব্যাপী ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্ট আপ’ এর প্রথম রাউন্ড শুরু হয়েছে। একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিজনেস ক্লাবের (এআইএস বিজনেস ক্লাব) সার্বিক সহযোগিতায় এ রাউন্ডে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি ডিভিশনের আইডিয়া’র প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মুজিবুল হক, অ্যাসোসিয়েট ম্যানেজমেন্ট মো. আনিসুর রহমান, ইয়াং বাংলার কো অর্ডিনেটর আশিকুর রহমান রুপক, বশেমুরবিপ্রবি’র প্রক্টর মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ভূঁইয়া, একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগের সভাপতি মো. আব্দুল মান্নান খাঁন প্রমুখ।

দেশগঠনে তরুণদের উদ্ভাবনী ভাবনা, উদ্যোগ ও স্টার্টআপকে ব্যবহার করার লক্ষে ‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’ স্লোগানে আলোকিত হয়ে ৮ মার্চ কেন্দ্রীয় সমন্বয় কর্মশালার মাধ্যমে শুরু হয় ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’-এর যাত্রা।

দেশের আট বিভাগ থেকে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে পরিচালিত হবে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্ট আপ: চেপ্টার ওয়ান’ প্রতিযোগিতা। নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকেও অংশ নিতে পারবে শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাস পর্যায়ের এ প্রতিযোগিতায় প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাছাই করা হবে ৩টি দল। পরে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২০ দল নিয়ে সাভারে অনুষ্ঠিত হবে ‘জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প’। পরবর্তীতে দর্শক এবং বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ ৩০ স্টার্টআপ। সর্বশেষে জাতীয় পর্যায়ে সেরা ১০ উদ্ভাবনী ভাবনা বা স্টার্টআপ নির্বাচন করা হবে যাদের সব ধরণের সহায়তা প্রদান করবে ‘আইডিয়া’ প্রজেক্ট।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিভাগের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমি (আইডিয়া) প্রজেক্ট এবং দেশের তরুণদের জন্য সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলার যৌথ উদ্যোগে শুরু হওয়া এই স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় প্রথম অধ্যায়ে ৪০ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তী অধ্যায়ে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়েও এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ