বগুড়া ও না’গঞ্জে নারীসহ তিন জনের লাশ উদ্ধার

বগুড়া ব্যুরো:
বগুড়ায় পুলিশের তালিকাভুক্ত নারী মাদক ব্যবসায়ী রিনা বেগমের (৩৫) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে শহরতলীর মাটিডালী এলাকায় করতোয়া নদীর ব্রিজের নিচ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান, বনানী-মাটিডালী দ্বিতীয় বাইপাস মহাসড়কে করতোয়া ব্রিজের নিচে কচুরিপানার মধ্যে মরদেহ দেখে স্থানীয় লোকজন থানা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে রিনা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে। তাকে মঙ্গলবার রাতে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। পরে নদীতে কচুরিপানার মধ্যে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা।
এদিকে রিনা বেগমের স্বামী মুক্তার হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে পুলিশ পরিচয়ে সাদা পোশাকে একদল ব্যক্তি বাড়ি থেকে তার স্ত্রী রিনাকে ধরে নিয়ে যায়। সকালে থানা এবং ডিবি অফিসে খোঁজ নিতে গেলে পুলিশ গ্রেফতারের বিষয়টি অস্বীকার করে।
এদিকে রিনার স্বামী মুক্তার হোসেনের অভিযোগ অস্বীকার করে বগুড়া সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান জানান, পুলিশের ভুয়া পরিচয়ে অন্য কেউ রিনাকে তুলে নিয়ে যেতে পারে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।
এদিকে রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, রূপগঞ্জে পৃথক স্থান থেকে নারী-পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের কায়েতপাড়া এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক মহিলার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। রূপগঞ্জ থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির জানান, মঙ্গলবার রাতে স্থানীয়রা কায়েতপাড়া এলাকার অতুল ঠাকুরের পুকুরে অজ্ঞাতপরিচয় এক মহিলার মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর। অপরদিকে, উপজেলার বিরাবো এলাকার মন্দিরের মাঠ থেকে মামুন (৩৫) নামে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মামুন উপজেলার বিরাবো এলাকার মৃত আব্দুল হাইয়ের ছেলে। ওসি আরো বলেন, বুধবার সকালে বিরাবো মন্দিরের মাঠে একটি মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।