ফের রাজপথে পোশাক শ্রমিকরা


সরকারের আশ্বাসের পরেও ফের বিক্ষোভে শুরু করেছেন পোশাক শ্রমিকরা। শনিবার সকালে মজুরি কাঠামোর অসঙ্গতি দূর করার দাবিতে রাজধানীর কয়েকটি স্থানে বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকরা এ বিক্ষোভ শুরু করেন।

ভাষানটেকের তামান্না গার্মেন্টসের শ্রমিকরা সকালে সড়কে নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ বিষয়ে ভাষানটেক থানার ওসি মুন্সি সাব্বির আহমেদ বলেন, শ্রমিকরা রাস্তা বন্ধ করার চেষ্টা করছে। তাদের বোঝানো হচ্ছে।

একই সময় শেওড়াপাড়ার কয়েকটি কারখানার শ্রমিকরাও সড়কে নেমে আসে। তাদের অবস্থানের কারণে রোকেয়া সরণিতে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। মিরপুর থানার ওসি দাদন ফকির  বলেন, শ্রমিকদের শান্ত করতে তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সকালে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এসময় শ্রমিকরা যাত্রীবাহী বাসসহ ১৫টি গাড়ি ভাঙচুর করেছে। এছাড়া বেলা ১২টার দিকে গাবতলীর কাছে টেকনিকালে শ্রমিকরা সড়কে অবস্থান নিলে সাভারমুখে গাড়ি চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়।

তৈরি পোশাক খাতে শ্রমিকদের নতুন মজুরি কাঠামো অনুযায়ী চলতি জানুয়ারি মাস থেকে নতুন হারে বেতন দেওয়া শুরু হয়েছে। শ্রমিকদের অভিযোগ, নতুন কাঠামোয় বেতন প্রত্যাশা অনুযায়ী পাননি তারা। কারও কারও ক্ষেত্রে বেতন আগের চেয়ে কমে গেছে। প্রাপ্য বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা সড়কে নেমে আসার পর নতুন সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে মজুরি কাঠামো পুনর্মূল্যায়নে একটি কমিটি গঠন করেছে। কমিটি গত বৃহস্পতিবার প্রথম সভাও করেছে। পোশাক শ্রমিকদের জন্য গত বছর ঘোষিত নতুন মজুরি কাঠামোর সাতটি গ্রেডের মধ্যে যে তিনটি গ্রেড নিয়ে আপত্তি এসেছে, সেগুলো পর্যালোচনা করে সমন্বয়ের আশ্বাস দিয়েছেন কমিটির প্রধান শ্রম সচিব আফরোজা খান। শ্রমিকদের শান্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, কোনো শ্রমিকের বেতনই কমবে না।

মানবকণ্ঠ/এআর