ফুলের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক

ফুলের সঙ্গে মানুষের এক অপার সম্পর্ক রয়েছে, যে সম্পর্কের কোনো তুলনা হয় না আর কোনো সম্পর্কের সঙ্গে, যে সম্পর্ক স্বর্গের, অ-পার্থিব। ফুল মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় একটি জিনিস। মানুষের প্রত্যেকটা কাজেই ফুল প্রয়োজন। ফুল ছাড়া সুন্দর, সৌরভময় কিছুর কল্পনা করা যায় না। বাসা থেকে শুরু করে অফিস অবধি ফুলের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতে ফুল বিশেষ ভূমিকা রাখে। তেমনই অফিসের ডেস্কেও একটা ফুলদানিতে কিছু ফুল রাখলে সেখানকার সৌন্দর্যকে আরো উজ্জীবিত করে রাখে। জন্মদিনে ফুল রাখলে জন্মদিনটা আরো আকর্ষণীয় হয়ে ওঠে। বিয়েতে কিংবা গায়ে হলুদে মানুষ প্রচুর ফুল ব্যবহার করে। এতে কনে এবং বরের বসার স্টেজটা আরো সুন্দর, আরো আকর্ষণীয় হয়ে ওঠে। ভালোবাসার আদান-প্রদানও হয় ফুল দিয়ে। প্রথম দেখায় প্রেমিক অথবা প্রেমিকা যদি ফুল নিয়ে যায় তার প্রিয় মানুষের সঙ্গে দেখা করতে, এতে দু’জনই খুব খুশি হয়, সম্পর্কের গভীরতা বাড়তে থাকে। সুতরাং মানুষের চলার ক্ষেত্রে ফুলের ভূমিকা অকল্পনীয়। ফুল মানুষের রুচিবোধের পরিচয় প্রকাশ করে, মানুষের ব্যক্তিত্বের প্রকাশ ঘটায়। ফুল মানুষের মনের গভীরতা প্রকাশ করে। তাই তো কেউ কেউ বাসার সামনে খালি জায়গা পেলে সেখানটায় ফুলের গাছ লাগায়, বারান্দার খালি জায়গাটায় ফুলের গাছ লাগায় অথবা বাসার ছাদেও ফুলের গাছ লাগায়। ফুল সৌরভ ছড়ায়। মানুষ গন্ধ শুঁকে ফুলের মমতা অনুভব করে। এই মমতাটুকু খুব জরুরি। ব্যস্ততাকে একটু ছুটি দিয়ে বাসার সামনে কিংবা ছাদের ফুলগাছগুলোর কাছে গেলে যেন কিঞ্চিৎ প্রশান্তি হলেও পাওয়া যায়, যে প্রশান্তিটুকু খুব জরুরি। নিত্যদিনের চলার কাজে এই প্রশান্তিটুকুই স্বস্তি দেয়, আরাম দেয়, আনন্দ দেয়। মেয়েরা তাদের চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে খোঁপায় ফুল গুঁ৬েজ রাখে। বসন্ত এলে তো পুরুষের মাথায়ও ফুলের মালা দেখা যায়। কৃষ্ণচূড়া, বেলি, রজনীগন্ধা আরো নানা ফুলের সমন্বয় ঘটে তখন। ফুলের কদরও বোঝা যায়। শুধু বসন্তের নয়, একুশে ফেব্রুয়ারি, পহেলা বৈশাখ, ভ্যালেন্টাইন ডেসহ উৎসবমুখর দিনগুলোতে বোঝা যায় ফুল আমাদের কতটা জরুরি বা মানুষের সঙ্গে ফুলের কতটা সম্পর্ক! ফুল না থাকলে বোধ হয় মানুষের সঙ্গে মানুষের সম্পর্কগুলোও এত মধুর হতো না, এত প্রাণবন্ত, এত উজ্জীবিত হতো না, সম্পর্কের গভীরতা বোঝা যেত না। ফুলের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক থাকার কারণে আমরা আমাদের সম্পর্কটা খুব সহজেই বুঝতে পারি। আমরা বুঝতে পারি মানুষের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক, নারীর সঙ্গে পুরুষের সম্পর্ক, প্রেমিকের সঙ্গে প্রেমিকার সম্পর্ক। আমরা বুঝতে পারি প্রেমের সম্পর্ক, ভালোবাসার সম্পর্ক, আদরের সম্পর্ক। এইসব সম্পর্কের প্রকাশই ঘটে ফুলের মাধ্যমে। পরিচিত কোনো মানুষকে কোনো পণ্যের পরিবর্তে একটা ফুল উপহার দিলে অবশ্যই সে মানুষটি খুব খুশি হয়। যতœ করে ফুলটা ঘরে নিয়ে সাজিয়ে রাখে অথবা কোনো একটা ফুলদানিতে বা বোতলে পানি ভরে সে পানিটার ওপর ফুলটা রাখে সুরক্ষিত, উজ্জীবিত থাকার জন্য। ফুলের প্রতি মানুষের যে টান বা ভালোবাসা তা আসলে অন্য কোনো জিনিসের প্রতি তেমন দেখা যায় না। মানুষ ফুলকে ভালোবাসে। কেননা ফুল নিষ্পাপ, পবিত্র, সৌরভময়। ফুলের যে সৌরভ মানুষকে আকর্ষণ করে, কাছে টেনে নেয়, ঠিক ততটা কাছে মানুষও মানুষকে নিতে পারে না কখনো। নেবেইবা কীভাবে! ফুলের মতো আকর্ষণীয় তো মানুষ নয়। মানুষ তাই ফুলকে ভালোবাসে। কারো কারো কাছে আবার ফুলকে স্বর্গের মতো মনে হয়। ফুলের ঘ্রাণ শুঁকে মনে হয় স্বর্গ বুঝি এমনই। তাই তো ফুলের সঙ্গে মানুষের সম্পর্কের কোনো তুলনা হয় না। ফুলের সঙ্গে মানুষের অপার সম্পর্ক রয়েছে। – আরিফ খন্দকার