প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে জখম

নরসিংদীর মনোহরদীতে স্কুলছাত্রী তানজিমাকে (১৫) কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় বুধবার সকালে মফিজুল ইসলাম (১৮) নামের এক যুবক এ ঘটনা ঘটান বলে অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তানজিমাক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তানজিমা অর্জুনচর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী এবং নলুয়া গ্রামের তারা মিয়ার মেয়ে।

স্বজনদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে তানজিমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল সরাইকান্দী গ্রামের আব্দুর রশিদ মিয়ার ছেলে মফিজুল ইসলাম। তবে তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ক্রমাগত হুমকি দিচ্ছিল মফিজুল। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকালে স্কুলে যাওয়ার সময় সরাইকান্দী গ্রামের নীলু মাঝির কলাবাগান সংলগ্ন এলাকায় তানজিমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে মফিজুল। পরে গুরুতর আহত তানজিমাকে উদ্ধার করে প্রথমে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাশারফ হোসাইন জানান, ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্কুলছাত্রীকে এলোপাতাড়িভাবে আঘাত করায় তার ডান হাতের কব্জি প্রায় বিচ্ছিন্ন অবস্থায় আছে, মাথায় প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাছাড়া শরীরের অন্যান্য স্থানেও মারাত্মক জখম রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মনোহরদী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান বলেন, স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছি। অপরাধীকে আইনের আওতায় আনতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তাছাড়া বখাটে মফিজুলকে ধরিয়ে দিতে নরসিংদীর পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন ৫ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছেন।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ