প্রাচীন নিদর্শন খাসনগর দীঘি

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমির নাম বাংলাদেশ। এদেশের খাল-বিল, ঝিল, হাওর-বাঁওড় বিস্তৃর্ণ জলাশয় ও প্রাচীন ইতিহাস আর প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো যুগ যুগ ধরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ভ্রমণপ্রিয় উৎসাহী মানুষকে আকর্ষণ করে। তাই তো কবি বলেছেন- এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি/ সব দেশের রানী সে যে আমার জন্মভূমি। নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ পৌরসভার অন্তর্গত খাসনগর দীঘি। দীঘির দৈর্ঘ্য-প্রস্থ বিশাল ১৩ দশমিক ৪৪ একর জমি নিয়ে দীঘিতে রূপান্তরিত হয়। সোনারগাঁ গৌরবের সুবিশাল এই দীঘি পলিমাটিতে ভরে গেছে। গভীরতা নেই বললে চলে। দীঘিটি দেখে গভীরতা অনুমান করা যাবে না। এমন কিছু দীঘি আছে, কতদিন আগেকার আজো পর্যন্ত তার হদিস মেলেনি। কারো কারো মতে, প্রায় এক হাজার বছরের আগেকার দীঘি। সোনারগাঁয়ে এত বড় দীঘি আর কোথাও দেখা যায়নি। সোনারগাঁয়ে বেশ কিছু দীঘি বালু দ্বারা ভরাট হয়েছে। ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, ইংরেজ শাসন আমলে খাসনগর দীঘিটির পাড়ে পৃথিবীর বিখ্যাত মসলিন তৈরি করা হতো। দীঘির ঠাণ্ডা আর্দ্রতা ও স্বচ্ছ টলমলে পানির কদর ছিল খাসনগর দীঘির আকর্ষণ। জেমস টেলরের মতে, বিখ্যাত খাসনগর দীঘির কিছু বর্ণনায় দীঘিটি মসলিন তৈরির অন্যতম স্থান বলে উল্লেখ করেছেন। প্রাচীন আমলে ব্যবসায়ের কেন্দ্রবিন্দু ছিল সোনারগাঁয়ের এই খাসনগর দীঘি। দেশি-বিদেশি রাজা-বাদশা বাণিজ্যের উদ্দেশ্যে আসত পঙ্খীরাজ খাল দিয়ে খাসনগর দীঘির পাড়ে। সোনারগাঁয়ের ঐতিহাসিক নিদর্শন নগর দীঘিটি। আঠারোশ-উনিশশ’ শতকে মসলিন মোগল রাজদরবারে পৌঁছাত তাতে লেখা থাকত ‘খাসনগর’। সোনারগাঁয়ের ঐতিহ্য গৌরবগাথা বিশাল বিশাল পুকুর ভরাট হয়ে যাচ্ছে। সোনারগাঁওয়ের প্রতিটি বাড়ির কোণে একটি করে পুকুর ছিল বিধায় বাড়ির আঙ্গিনাকেও ফুটিয়ে তুলত। এখন হয়তোবা দূর দেশ থেকে নিজ বাড়ি নিজেই চিনতে বড় কষ্ট হবে। এই পুকুরগুলো কতদিন আগেরকার কোনো ইতিহাস গ্রন্থে লিপিবদ্ধ নেই বলে বোঝা বড় মুশকিল। খাসনগর দীঘিটি টিকে থাকলে হয়তো নিদর্শন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে সোনারগাঁ। সোনারগাঁয়ের ইতিহাস-ঐতিহ্য আমাদের গর্বের ধন। হাজার বছরের লালিত প্রাচীন ও প্রাচুর্যময় ইতিহাস-ঐতিহ্য গৌরবোজ্জ্বল আবহমান বাংলার রাজধানী সোনারগাঁ আর ঈশা খাঁর অসাধারণ বুদ্ধিমত্তার কারণে এক সময়ে বাংলার রাজধানী সোনারগাঁয়ের মাটি ও মানুষের পরিচিতির পরিধি গৌরবে পরিণত করেছে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অবারিত আকর্ষণ প্রাচীন নিদর্শন। যা প্রাকৃতিক পাখির কল্লোলে হৃদয়ছোঁয়া এক নৈসর্গিক পরিবেশ সোনারগাঁ। খাসনগর দীঘির গভীরতার জন্য প্রতœতত্ত্ববিদ ও গবেষকরা বিশ্লেষণ করে বলেন, দীঘিটির মান সংরক্ষণ করা হলে আরো দৃষ্টিনন্দন বৃদ্ধি পাবে।
লেখক: হাজী মোহাম্মদ মহসীন