প্রমাণ না দেখাতে পারলে মামলার মুখোমুখি হতে হবে: ফখরুলকে কাদের

ওবায়দুল কাদের

পদ্মা সেতুর অবকাঠামো নির্মাণ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের অভিযোগ প্রমাণ না করতে পারলে তাকে মামলার মুখোমুখি হতে হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভুল’ নকশায় এই সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। ‘জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু করা হচ্ছে’ মন্তব্য করে তাতে অনুসারীদের উঠতে নিষেধ করে সমালোচনা শুনতে হচ্ছে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে। বিএনপি মহাসচিব বলছেন, দুর্নীতির জন্য সরকার এটা করছে। এর আন্তর্জাতিক তদন্ত চান তারা।

শুক্রবার রাজধানীর কমলাপুরে ঢাকা দক্ষিন আওয়ামী লীগের শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ প্রতিক্রিয়া দেন ওবায়দুল কাদের।

কাদের বলেন, এখন ফলরুল সাহেব বলছেন পদ্মাসেতুর ডিজাইনে ভুল আছে। ডিজাইনে ভুল আছে প্রমাণ করতে আসুন, তথ্য উপাত্ত নিয়ে আসুন। প্রমাণ না দেখাতে পারলে আপনাকেও মামলা ফেস করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পাঠানো আইনি নোটিশের জবাবে পাল্টা উকিল নোটিশ পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জিয়া পরিবারের যে দুর্নীতির খবর তুলে ধরেছেন সেটা দেশি বিদেশি গণমাধ্যমের তথ্যের ভিক্তিতে। এই তথ্য গুলো মিডিয়া দিয়েছে। এটা প্রমানিত। এদের দুর্নীতির কেচ্ছা রুপকথার কাহীনিকেও হার মানায়। প্রধানমন্ত্রীর সৎ সাহস আছে বলে তিনি সত্যকে তুলে ধরেছেন। এতে বিএনপি নেতাদের অন্তর্জালা শুরু হয়ে গেছে। ভুয়া, মিথ্যা উকিল নোটিশ পাঠানোর জন্য বিএনপিকেও উকিল নোটিশ দেয়া হচ্ছে। অপেক্ষা করুন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিবন্ধিত দল ছাড়া অন্য কেউ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, দেখুন এই প্রশ্নের জবাব দেবে নির্বাচন কমিশন। তা আমি দিতে পারি না। আমি যতটুকু জানি এখানে নিবন্ধিত কোনো দল ছাড়া অন্য কেউ অংশগ্রহণ করা কথা নয়। কমিশন অ্যালাও করা ঠিক না।

এই শীতে বিএনপির কোনো কার্যক্রম না থাকায় ওবায়দুল কাদের বলেন, এবারের শীত ৫০ বছরের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। তীব্র শীতের মধ্যে আমাদের নেত্রী টেলিভিশনেরর স্ক্রলে যখন পঞ্চগর ঠাকুরগাওয়ের তীব্র শীতের কথা চোখে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি আমাকে পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে যেতে বললেন শীত বস্ত্র বিতরণের জন্য। সেদিন আমরা চলে গেছি। রাতে আমরা প্রচণ্ড শীতের মধ্যে সৈয়দপুরে শীত বস্ত্র বিতরণ করেছিলাম। আমরা নগদ ৩২ লাখ টাকা ও ৩৭ হাজার কম্বল বিতরণ করি। আমাদের রাজনীতি নিষ্ঠুর হয়ে গেছে। এটা শুধু প্রতিপক্ষকে গায়েল করার জন্য। রাজনীতি শুধু প্রতিপক্ষকে বিষোদগার নয়।

তিনি বলেন, মানুষের দুঃখ-কষ্টের এ অবস্থায়ও আমরা আওয়ামী লীগ ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলকে শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখিনি। হয়তো আওয়ামী লীগ যাওয়ার জন্য অনেকে যায়। সেটাতো একদিনের জন্য লোক দেখানো সাহায্য।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

মানবকণ্ঠ/এসএস