পুঁজিবাজারে যাওয়া নিয়ে মতানৈক্য

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের সব কোম্পানিকেই পুঁজিবাজারে যাওয়ার জন্য ঘোষণা দিয়েছিল সরকার। এক্ষেত্রে বিদ্যুৎখাতের কোম্পানিগুলো আগ্রহ দেখালেও অনাগ্রহ দেখাচ্ছে জ্বালানিখাতের কোম্পানিগুলো। এই জটিলতা কাটাতে সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

সূত্র জানায়, নতুন ওই কমিটি কোম্পানিগুলোর অবস্থা পর্যালোচনা করবে। এরপর সেসব কোম্পানি শেয়ার ছাড়বে কি ছাড়বে না সে বিষয়ে সুপারিশ করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করবে। সম্প্রতি বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ার ছাড়ার বিষয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে জ্বালানি বিভাগের সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী জ্বালানিখাতের কোম্পানির এই মুহূর্তে পুঁজিবাজারে অন্তর্ভুক্তি সম্ভব নয় বলে জানান। তিনি ওই বৈঠকে জানান, যেসব কোম্পানি নিয়ে কথা হচ্ছে তারা এফডিআর ভেঙে চলছে। যেহেতু মুনাফা হচ্ছে না তাই শেয়ার বাজারে অন্তর্ভুক্তি সম্ভব নয়।

জ্বালানি বিভাগ সূত্র জানায়, লিক্যুইফাইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস লিমিটেড (এলপিজিএল), বাখরাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এবং গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেডের (জিটিসিএল) শেয়ার ছাড়ার বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। এই তিন কোম্পানির কেউই পুঁজি বাজারে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব দেখায়নি।

এদের মধ্যে বাখরাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি জানায়, গ্যাসের চাহিদা অনুযায়ী জোগান না থাকার পাশাপাশি সিএনজি এবং আবাসিকে সংযোগ বন্ধ থাকায় মুনাফা কমছে। আর কোম্পানির প্রকল্প গ্রহণের জন্য নিজস্ব তহবিল থেকেই ব্যয় নির্বাহ সম্ভব। তাদের অর্থের প্রয়োজন না থাকায় পুঁজিবাজারে অন্তর্ভুক্ত হওয়া প্রয়োজন নেই বলে তারা জানায়।

গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি জানায়, বর্তমানে অনেকগুলো পাইপলাইন স্থাপনের কাজ করছে জিটিসিএল। পুঁজি বাজার থেকে অর্থ তোলার সুযোগ থাকলেও এর বিরোধিতা করছে কোম্পানিটি।

বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্র জানায়, এ খাতের চারটি কোম্পানি পুঁজিবাজারে শেয়ার ছাড়ার আগ্রহ দেখিয়েছে। এদের মধ্যে তিনটি নতুন কোম্পানি, একটি পুরনো কোম্পানি যারা আগে থেকে পুঁজি বাজারে রয়েছে। এবার আরো ১৫ শতাংশ শেয়ার ছাড়বে তারা। যে তিনটি কোম্পানি শেয়ার ছাড়ার বিষয়ে একমত হয়েছে সেগুলো হচ্ছে নর্থওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি (এনডব্লিউপিজিসিএল), ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানি অব বাংলাদেশ (ইজিসিবি) এবং আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেড (এপিএসসিএল)। এদের মধ্যে আশুগঞ্জ পুরনো কোম্পানি হলেও এনডব্লিউপিজিসিএল এবং ইজিসিবি অনেকটা নতুন কোম্পানি।

মানবকণ্ঠ/এসএস