পরমাণু সমঝোতার প্রতি চীনের জোরালো সমর্থন

পরমাণু সমঝোতার প্রতি চীনের জোরালো সমর্থন

আমেরিকা বেরিয়ে যাওয়ার পর ইরানের পরমাণু সমঝোতা আগের অবস্থায় বহাল রাখার লক্ষ্যে প্রচেষ্টা চালানোর প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে চীন। এ লক্ষ্যে দেশটি পাঁচ দফাবিশিষ্ট একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেছে।

সোমবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং বেইজিং-এ এক সংবাদ সম্মেলনে এসব প্রস্তাব তুলে ধরেন। আমেরিকা ছাড়া এ সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী বাকি দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা গত শুক্রবার ভিয়েনায় যে বৈঠক করেন সে সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছিলেন চুনিং। খবর : এএফপির।

গত মে মাসে আমেরিকা ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ফ্রান্স, জার্মানি, ব্রিটেন, রাশিয়া ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা গত সোমবার প্রথমবারের মতো ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন।

চুনিং সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বর্তমানের কঠিন ও জটিল পরিস্থিতিতে পরমাণু সমঝোতা রক্ষার জন্য বেইজিং পাঁচ-দফাবিশিষ্ট প্রস্তাব তুলে ধরছে। তিনি বলেন, এ সমঝোতার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলতে হবে, বড় শক্তিগুলোকে সততা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে, একটি দেশের পক্ষ থেকে আরোপিত নিষেধাজ্ঞায় একক দৃষ্টিভঙ্গির প্রতিফলন ঘটে বলে তা পরিহার করতে হবে এবং যৌথ স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গঠনমূলক মনোভাব নিয়ে আলোচনা ও পরামর্শ করতে হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত মে মাসে তার দেশসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকাকে বের করে নেন। একইসঙ্গে আগামী ছয় মাসের মধ্যে তেহরানের ওপর ‘কঠোরতম’ নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দেন তিনি।

২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিনিময়ে নিজের পরমাণু কর্মসূচিতে সীমাবদ্ধতা এনেছিল তেহরান।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ শুক্রবার ভিয়েনায় বলেন, আমেরিকা ছাড়া বাকি পাঁচ দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ওয়াশিংটনের একতরফা নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এসএস