নৌকার মাঝি হলেন বদির স্ত্রী ও রানার বাবা

জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বাদ পড়েছেন কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের সরকারদলীয় বিতর্কিত এমপি আবদুর রহমান বদি। সেই আসনে নৌকার মাঝি হলেন তার স্ত্রী শাহীনা আক্তার চৌধুরী। একইভাবে খুনের দায়ে কারাবন্দী টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানার পরিবর্তে তার বাবাকে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, জরিপে এগিয়ে থাকলেও বিতর্কের কারণে কক্সবাজারের আব্দুর রহমান বদি ও টাঙ্গাইলের আমানুর রহমান খান রানাকে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে না। এবারে কক্সবাজার-৪ আসনে বদিকে ড্রপ করে তার স্ত্রীকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। বদিকে আমরা মনোনয়ন দেইনি। এটা আমি আগেভাগেই বলছি যদিও আমরা ঘোষণা দেইনি। আরেকটা হচ্ছে টাঙ্গাইলের (টাঙ্গাইল-৩) ঘাটাইলে মার্ডারের অভিযোগে এমপি (আমানুর রহমান রানা) কারাগারে। সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট রানার বাবা আতাউর রহমান খানকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

মনোনয়ন ও আসন বিন্যাস নিয়ে কাদের বলেন, ‘আমাদের দলীয় যে মনোনয়ন করব এটা আমরা মোটামুটি শেষ করেছি। এখন অ্যালায়েন্সের সঙ্গে আলাপ আলোচনা, সিট শেয়ারিংয়ের বিষয় নিয়ে আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। ২৫ নভেম্বর মনোনয়ন নিয়ে জোটগতভাবে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হবে। হেভিওয়েট আরো কেউ বাদ পড়তে পারে।

এবার যাকে মনোনয়ন দেয়া হবে তাদের অবশ্যই ভালো হতে হবে। তবে এখন শোনা যাচ্ছে যারা আগে ছিলেন এমপি-মন্ত্রী তাদেরকেই মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে কিন্তু কেন? সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘মন্ত্রীরা খারাপ লোক। কোন মন্ত্রী খারাপ আপনি বলুন। আপনি বলুন ওই মন্ত্রী খারাপ। কীভাবে মেজারআপ করবেন। এটা তো প্রমাণ হতে হবে।’

ভারত আওয়ামী লীগকে ফের ক্ষমতায় দেখতে চাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতির জন্য এই সরকার কন্টিনিউ করুক এই কথা ইন্ডিয়া কেন বলবে? আর ইন্ডিয়া কি আমাদের জেতাতে পারবে? আমাদের জনগণ যদি ভোট না দেয়? আমাদের জনগণ যদি আমাদের ভোট না দেয় ইন্ডিয়া কি আমাদের জেতাতে পারবে? আর সেটা কি আমরা আশা করব। এটাতো আমাদের দেশ।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইন্ডিয়ার বিজেপি গর্ভমেন্টকে যদি জনগণ ভোট না দেয়, প্রতিবেশী কেউ গিয়ে তাদের জেতাতে পারবে, কোনো সরকার? এটাতো ইম্পসিবল। আর এ ধরনের চিন্তা আমরা কেন করব। রক্ত দিয়ে দেশ আমরা স্বাধীন করেছি। আমাদের জনগণের অপরিসীম ত্যাগ-তীতিক্ষার হাজার বছরের সাধনার পরে দেশ স্বাধীন হয়েছে। আমাদের ইলেকশন আমরা করব। এতে বাইরের কারও ইন্টারফেয়ার, আমাদের এখানে যে নির্বাচন। নির্বাচনে কোনো পক্ষকে সমর্থন করবে এটা কেমন করে হয়। এটাতে কী আমাদের লাভ আছে।’

তিনি বলেন, ‌‘পিপল যদি আমাদের ভোট না দেয় আমরা কি ইন্ডিয়া আমাদের চাক এই ধারণার উপর কি আমরা বসে থাকব। আমাদের জনগণই আমাদের নির্বাচিত করতে পারে। অন্য কোনো বিদেশি শক্তি বা প্রতিবেশী বা বাইরের শক্তি অন্য কেউ আমাদের ইলেকশনে হস্তক্ষেপ করবে। ইন্ডিয়ার মতো গণতান্ত্রিক দেশে অন্য কেউ হস্তক্ষেপ করেছে বলে আমার জানা নেই।’

মানবকণ্ঠ/এফএইচ