নেপালে ঋতুমতী ঘরে দুই সন্তানসহ এক নারীর মৃত্যু

নেপালের বাজুরা জেলায় নিষিদ্ধ ঋতুমতী ঘরে দম বন্ধ হয়ে আম্বা বহারা নামের এক নারী দুই সন্তানসহ নিহত হয়েছেন। পুলিশ বলছে নেপালে ঋতুমতী ঘর প্রথা এক দশক আগে নিষিদ্ধ করা হলেও ওই নারীকে জোর করে আবদ্ধ কক্ষে থাকতে বাধ্য করা হয়। খবর আল জাজিরার।

পুলিশ জানায় মঙ্গলবার রাতে মাটি এবং পাথর দ্বারা তৈরি ঋতুমতী ঘরকে উষ্ণ রাখতে ঘরটির পাশে আগুন জ্বালানো হয়। এরপর দিন ৩৫ বছর বয়সী বহারা ও তার ১২ এবং ৯ বছর বয়সী দুই পুত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে উদ্ধাব সিং ভাট নামের এক পুলিশ কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানায়,  দম বন্ধ হয়ে তারা মারা গেছে কারন সেখানে বাতাস বের হওয়ার কোন উপায় ছিল না এবং ঠাণ্ডা থেকে বাঁচতে ওই ঘরকে তারা আরো আবদ্ধ বানিয়ে রেখেছিল।   তাদের দেহে আগুনে পোড়া ক্ষতও পাওয়া গেছে ।

প্রসঙ্গত, নেপালে ঋতুমতি অবস্থায় নারীদের অপবিত্র গণ্য করে গোয়াল ঘর অথবা আলাদা কোন ঘরে রাখার চর্চা বহুদিন ধরে চলে আসছে,যা ছাউপাডি নামে পরিচিত। তবে ২০০৫ সালে নেপালের সুপ্রিম কোর্ট এই প্রথা নিষিদ্ধ করেন।

মানবকণ্ঠ/এআর