নয়াপল্টনের ঘটনায় পুলিশকে চিঠি দিচ্ছে ইসি

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিতরণকালে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা সম্পর্কে জানতে মহাপুলিশ পরিদর্শককে (আইজিপি) চিঠি দিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রোববারের মধ্যেই এই চিঠি পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, নয়াপল্টনে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ কর্তৃক ধারণকৃত স্থিরচিত্র ও ভিডিও চিত্রসহ একটি লিখিত প্রতিবেদন দুই দিনের মধ্যে পাঠানোর জন্য বলবে ইসি।

এ বিষয়ে কমিশনের নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মদ খান বলেন, পল্টনের ঘটনায় আইজিপিকে চিঠি দিচ্ছে কমিশন। চিঠিটি রোববার পাঠানো হতে পারে।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আসলে ওখানে (নয়াপল্টনে) কী হয়েছে এটা পুলিশ বিভাগের কাছে জানতে চাওয়া হবে।

জানা গেছে, এ সংক্রান্ত একটি চিঠির খসড়া ইতোমধ্যে তৈরি করা হয়েছে। সেখানে একটি অংশে বলা হয়েছে, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদন হতে দেখা যায়, নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের কার্যালয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়নপত্র গ্রহণ বা জমা দেয়ার সময় মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন সহকারে মিছিল এবং শোডাউন করা হয়। এটি সংসদ নির্বাচনের রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা ২০০৮ এর ৮ বিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এ পরিপ্রেক্ষিতে আচরণ বিধিমালা যথাযথভাবে প্রতিপালনের বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য মহাপুলিশ পরির্শককে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করা হলো।

গত ১৪ নভেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় মনোনয়নপত্র বিতরণ ও গ্রহণকালে অফিসের সামনে রাস্তায় নেতাকর্মীরা অবস্থান করে মিছিল করে। বিভিন্ন প্রত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী এ সময় যানবাহন বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশ রাস্তায় যান চলাচলের জন্য তৎপর হয়। এ নিয়ে বিএনপি কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। বেশ কিছু গাড়ি ভাঙচুর করা হয়, পুলিশের দুটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এতে পুলিশসহ কিছু লোকজন আহত হন।

প্রসঙ্গত, পুনঃনির্ধারিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২৮ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ২ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বর এবং ভোটের দিন ৩০ ডিসেম্বর।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ