নদীর তলদেশ থেকে ২৪ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি :
নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া একটি বাল্কহেডের ভেতর থেকে ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় পর এক ইঞ্জিন সহকারীকে জীবিত উদ্ধার করেছেন ডুবুরিরা। নারায়ণগঞ্জ নৌ পুলিশের পরিদর্শক আবু তাহের জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে সোহাগ হাওলাদারকে (৩৫) উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি এখন সুস্থ আছেন বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন।
পরিদর্শক তাহের জানান, বুধবার দুপুরে বন্দর উপজেলার ২ নম্বর ঢাকেশ্বরী সোনাচড়া এলাকায় বিআইডব্লিউটিসির ডকইয়ার্ডের সামনে যশোর ফেরির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ‘এমভি মুছাপুর’ নামের বালুবোঝাই বাল্কহেডটি ডুবে যায়। এ সময় বাল্কহেডের চালকসহ অন্যান্য লোকজন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও বাল্কহেডের ইঞ্জিন রুমে থাকা গিজারম্যান সোহাগ আটকা পড়ে পানির নিচে তলিয়ে যান।
তাহের জানান, বুধবার বিকেল থেকে ফায়ার সার্ভিস ও বিআইডব্লিউটিএর ডুবুরি দল সোহাগ হওলাদারকে উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করে। পরে বেসরকারি ডুবুরি দলকে উদ্ধার তৎপরতার জন্য নিয়োগ করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বেসরকারি ডুবুরি দলের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম সিকদার বাল্কহেডের ভেতর থেকে জীবিত অবস্থায় সোহাগ হাওলাদারকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।
নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাজনীন সুলতানা বলেন, তার রুমে পানি প্রবেশ না করায় এবং রুমে অক্সিজেন থাকায় তিনি বেঁচে গেছেন। বর্তমানে সুস্থ আছেন। তবে ভয় পেয়েছেন।
উদ্ধার হওয়া সোহাগ বলেন, বাল্কহেড ডুবে যাবার পর থেকেই আমি ইঞ্জিন রুমে আটকা পড়ি। আমি সেখানে শুধুই আল্লাহর নাম জপছিলাম। কিভাবে এতটা সময় পেরিয়ে গেছে বলতে পারব না। একপর্যায়ে আমার জ্ঞান যায় যায় অবস্থা- এমন সময় আমাকে উদ্ধার করেন ডুবুরিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.