নতুন এমপিদের বরণে প্রস্তুত জাতীয় সংসদ

নতুন এমপিদের বরণে প্রস্তুত জাতীয় সংসদ

অনেক দিন পর আবারো প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে সার্বভৌম জাতীয় সংসদ। সদ্যসমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আসা নতুন এমপিদের পদচারণায় মুখর হবে সংসদ ভবন ও আশপাশের চত্বর। গত ৩০ ডিসেম্বর ভোট সম্পন্ন হওয়ার পর নতুন এমপিদের বরণ এবং শপথের আয়োজনে গত কয়েক দিনের ব্যস্ততা শেষ করে এনেছে সংসদ সচিবালয়। সব ধরনের প্রস্তুতি শেষে এখন নতুন এমপিদের শপথ অনুষ্ঠান আয়োজনের অপেক্ষায় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সবাই।

সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় সংসদ ভবনের নিচতলায় শপথ কক্ষে নতুন এমপিদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে গেজেট জারি করে তা সংসদ সচিবালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তবে, আজ শপথ নিলেও বর্তমান দশম সংসদ ভেঙে না দিলে ২৮ জানুয়ারি এই সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নবনির্বাচিতরা এমপি হিসেবে কার্যভার গ্রহণ করবেন। নবনির্বাচিত এমপিদের শপথ অনুষ্ঠিত করার লক্ষ্য ধরে সব ধরনের প্রস্তুতি গুছিয়ে আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংসদ সচিবালয়ের সচিব। স্পিকারের পরামর্শে পুরো আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি জানান, মঙ্গলবার স্পিকার রংপুর থেকে ঢাকায় ফিরেছেন। তার আগমনের আগে এ সংক্রান্ত প্রাথমিক প্রস্তুতির কাজ এগিয়ে রাখা হয়েছিল। তিনি আসার পর তার তত্ত্বাবধানে পুরো প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়।

এর আগে গতকাল দুপুরের আগেই নির্বাচন কমিশন থেকে নাম, ঠিকানাসহ নবনির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশ করে সংসদ সচিবালয়ে পাঠানো হয়। সংসদ নির্বাচনের ফল গেজেট আকারে প্রকাশের তিন দিনের মধ্যে শপথের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এরপর ৩০ দিনের মধ্যে অধিবেশন ডাকতে হবে। তবে ভোটের কতদিন পর গেজেট হবে, সে বিষয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরুর ৯০ দিনের মধ্যে জাতীয় সংসদের স্পিকারকে অবহিত না করলে বা শপথ না নিলে সদস্যপদ খারিজ হয়ে যাবে।

শপথ পড়ানোর বিষয়ে সংবিধানে বলা হয়েছে, ‘সংসদ সদস্যদের সাধারণ নির্বাচনের ফলাফল সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপিত হইবার তারিখ হতে পরবর্তী তিন দিনের মধ্যে এই সংবিধানের অধীন এতদুদ্দেশ্যে নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা তদুদ্দেশ্যে অনুরূপ ব্যক্তি কর্তৃক নির্ধারিত অন্য কোনো ব্যক্তি যে কোনো কারণে নির্বাচিত সদস্যদের শপথ পাঠ পরিচালনা করিতে ব্যর্থ হইলে বা না করিলে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার উহার পরবর্তী তিন দিনের মধ্যে উক্ত শপথ পাঠ পরিচালনা করিবেন, যেন এই সংবিধানের অধীন তিনিই ইহার জন্য নির্দিষ্ট ব্যক্তি।’

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর ১২ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। ২৯ জানুয়ারি সংসদের প্রথম অধিবেশন বসে। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিপুলসংখ্যক আসন নিয়ে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। যদিও আগামী ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্তমান সংসদের মেয়াদ রয়েছে। সরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণার ৩০ দিনের মধ্যে সংসদ অধিবেশন ডাকার বিষয়ে সংবিধানে বাধ্যবাধকতা আছে।

এ প্রসঙ্গে সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (২)-এর (১) দফায় বলা হয়েছে, ‘সংসদ সদস্যদের যে কোনো সাধারণ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষিত হইবার ত্রিশ দিনের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠানের জন্য সংসদ আহ্বান করা হইবে।’ নতুন নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের নামে গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে সরকারিভাবে ফল ঘোষণা করা হয়। কাজেই গেজেট প্রকাশের দিন থেকে এক মাসের মধ্যে সংসদের প্রথম অধিবেশন বসবে।

গত রোববার দেশের ২৯৯টি আসনে একযোগে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা পেয়েছেন ২৬৬টি আসন। লাঙ্গল নিয়ে নির্বাচন করে ২২টি আসন পেয়েছে জাতীয় পার্টি। বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট ৭টি আসন এবং অন্যরা ৪টি আসনে জয়লাভ করেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে দেশ পরিচালনার সুযোগ পায় আওয়ামী লীগ। ওই বছরের ১২ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তৎকালীন সরকারের মন্ত্রিসভা গঠিত হয়। এর আগে ৯ জানুয়ারি এমপিদের শপথ অনুষ্ঠিত হয়। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় নির্বাচনেও ইতিহাস গড়ে বিজয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ। টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনের রেকর্ড গড়তে চলেছেন। আজ নতুন এমপিদের শপথ গ্রহণ শেষে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন শেখ হাসিনা। এরপর গঠন করা হবে নতুন মন্ত্রিসভা। আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের একাধিক নেতা জানান, ১০ জানুয়ারির মধ্যে মন্ত্রিসভা গঠিত হতে পারে।

প্রথমবারের মতো সংসদে ড. কামালের গণফোরাম: এবারই প্রথমবারের মতো জাতীয় সংসদে দুটি আসনে জয়লাভ করেছেন গণফোরামের প্রার্থীরা। ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন এ দলের কোনো নেতা এর আগে এমপি নির্বাচিত হননি। নির্বাচিত দুই সদস্য হলেন সিলেট-২ আসন থেকে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মোকাব্বির খান ও মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। এদের মধ্যে মোকাব্বির খান গণফোরামের দলীয় প্রতীক উদীয়মান সূর্য নিয়ে নির্বাচন করলেও সুলতান মনসুর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করেছেন। আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়ে এসে ১৯৯২ সালে ড. কামাল হোসেন গণফোরাম প্রতিষ্ঠা করেন। দলটির মহাসচিব সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা মোহসীন মন্টু।

নতুন সাজে সাজছে সংসদ: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী এমপিদের বরণ করতে নতুন সাজে সাজছে জাতীয় সংসদ ভবন। শপথ গ্রহণের জোর প্রস্তুতি ছাড়াও সংসদ ভবন ধুয়েমুছে পরিষ্কার করা হয়। সংসদের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত গণপূর্ত অধিদফতরের প্রায় দুই শতাধিক কর্মী শপথ কক্ষ প্রস্তুতসহ সংসদ ভবন সাজানোর কাজ করেন। এদিকে নতুন এমপিদের পরিচয়পত্র প্রদানের জন্যও সংসদ সচিবালয়ের প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানা গেছে। জাতীয় সংসদ সচিবালয় ইতিমধ্যেই এমপিদের পরিচত্রপত্র প্রদান ও রেজিস্ট্রেশনের জন্য বুথ স্থাপন করেছেন। আজ শপথের পরপরই তাদের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা হবে।

মানবকণ্ঠ/এসএস