দেয়াল নির্মাণে ১০০ কোটি ডলার অনুমোদন পেন্টাগনের

দেয়াল নির্মাণে ১০০ কোটি ডলার অনুমোদন পেন্টাগনের

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য ১০০ কোটি ডলার (এক বিলিয়ন) অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন। দেয়াল নির্মাণের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অনড় অবস্থানের পর এবং জরুরি অবস্থা ঘোষণার পর প্রথমবারের মতো এই অর্থ অনুমোদন দিল পেন্টাগন। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য ৫ দশমিক ৭ বিলিয়ন (৫৭০ কোটি ডলার) দাবি ট্রাম্পের। তবে প্রথম কিস্তিতে এক বিলিয়ন বরাদ্দ দিয়েছে পেন্টাগন। খবর বিবিসির

পেন্টাগনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্যাট্রিক শানাহান বলেছেন, দেয়াল নির্মাণে প্রয়োজনীয় অর্থসংস্থানের অংশ হিসেবে তিনি এক বিলিয়ন ডলার অনুমোদন দিয়েছেন। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল সংস্কার ও নতুন দেয়াল নির্মাণে এই পরিমাণ অর্থ সেনাবাহিনীর প্রকৌশলীদের সরবরাহ করবে মার্কিন প্রতিরক্ষ দপ্তর।

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করার পরিকল্পনা এগিয়ে নিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার জরুরি ক্ষমতা ব্যবহার করছেন। জরুরি অবস্থার আওতায় মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল গড়তে যাচ্ছেন ট্রাম্প। এই বিশেষ ক্ষমতার অধীনে দেশটির হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ ১৮ ফুট উঁচু ৫৭ মাইল দেয়াল প্রতিরক্ষা দপ্তরকে নির্মাণ করতে বলেছে। এছাড়া এই কাজের অংশ হিসেবে পেন্টাগনকে সড়ক নির্মাণ ও উন্নয়ন, বাতি সংযোজনও করতে বলা হয়েছে। দেয়াল নির্মাণের জন্য সামরিক খাত থেকে অর্থ নেওয়া হতে পারে বলে আগেই ধারণা করা হচ্ছিল।

সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের ব্যয়কে অপ্রয়োজনীয় উল্লেখ করে অর্থ বরাদ্দের প্রস্তাবে সই করা থেকে বিরত থাকে প্রতিনিধি পরিষদ। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির সাময়িক বাজেটে সই না করার কারণে ৩৫ দিন বন্ধ থাকে মার্কিন ফেডারেল সরকার। তবে শেষ পর্যন্ত অনেকটা পরাজিত হয়ে বাজেট বিলে সই করেন ট্রাম্প। তবে তিনি হুঁশিয়ারি দেন যে এই অর্থ বরাদ্দ পেতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করবেন। তার কয়েকদিন পরই দেয়াল নির্মাণে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন ট্রাম্প।

তবে জরুরি অবস্থা ঘোষণার পরও এই অর্থ পেতে তাকে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। যদিও সব অর্থ তিনি পাবেন কি না তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

দেয়াল নির্মাণে অর্থ বরাদ্দের পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বার্তা দিয়েছেন ট্রাম্প পুত্র ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র।

মানবকণ্ঠ/এসএস