‘দেশ কারাগার হলে বিএনপি নেতারা বাইরে কেন?’

ওবায়দুল কাদের

‘সরকার গোটা দেশকে কারাগারে পরিণত করেছে’ বিএনপির এমন অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশ যদি কারাগার হতো তাহলে বিএনপির সিনিয়র নেতারা বাইরে কেন?। এমনটি হলে বিএনপি নেতাদের মুক্ত থাকার কথা না।

সোমবার দুপুরে সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের হেমায়েতপুর ও নবীনগর এলাকায় নির্মিত দুটি ফুট ওভারব্রিজ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে বিএনপির গণমিছিলের আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছিলেন, সরকার গোটা দেশকে কারাগারে পরিণত করেছে। বিএনপি নেতার এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতাদের উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, এখন দলের ছোট খাট নেতা যারা হাজতে আছেন তাদের জামিন না করিয়ে শুধু আপনারা নিজেদের কথাই চিন্তা করেন।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে উপনির্বাচনের বিষয়ে কাদের বলেন, কাকে প্রার্থী করা যায়, সে বিষয়ে একটি তালিকা করা হচ্ছে। এই তালিকা থেকে প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা।

কাদের আরো বলেন, দলীয় প্রতীকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উক্ত নির্বাচনের জন্য দলীয় সর্বোচ্চ ফোরামে সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। ইতোমধ্যেই দল ও দলের বাইরের জুরি বোর্ডের মাধ্যমে যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে। জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরবর্তীতে যাচাই বাছাই শেষে প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন।

আনিসুল হকের মৃত্যুর পর ১ ডিসেম্বর থেকে শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদ। আইন অনুযায়ী শূন্য ঘোষণার ৯০ দিনের মধ্যে ভোট হওয়ার কথা। কিন্তু কর্পোরেশনে নতুন ১৮টি ইউনিয়ন যুক্ত হওয়ায় এই ভোট নিয়ে আইনি জটিলতার আশঙ্কা করা হচ্ছিল। যদিও নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, ভোটে জটিলতা নেই এবং জানুয়ারির শুরুতে তফসিল ঘোষণা করা হবে এবং ভোট হবে ফেব্রুয়ারির শেষে।

মানবকণ্ঠ/এসএস