দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে শব্দ বোমা ফাটিয়ে লাভ নেই: কাদের

দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে শব্দ বোমা ফাটিয়ে লাভ নেই: কাদের

তারেক রহমানের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিদেশে পালিয়ে থেকে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে শব্দ বোমা ফাটিয়ে কোনো লাভ নেই। রাজনীতি করলে সাহস থাকতে হয়। জেল খাটার সাহস থাকতে হয়। কাপুরুষের মতন বিদেশের মাটিতে থেকে দেশে শব্দ বোমা ফাটিয়ে কোন লাব নেই। যদি সাহস থাকে তাহলে রাজপথে আসেন।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি আয়োজিত ‘দেশরত্ম, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়ার কারাবরণ প্রসঙ্গে বলেন, আমরা তাকে (খালেদা) কারাগারে দেয়নি, যে আমরা বের করবো। যদি তাকে (খালেদা) আপনারা ভালোবেসে থাকেন, তাহলে আইনি লড়ায়ের মাধ্যমেই তাকে বের করতে হবে।

বিএনপির আন্দোলন ও খালেদা জিয়ার প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, সবচেয়ে বড় কথা দেশে আন্দোলনের অবজেক্টিভ বলে কিছু আছে কি? তা না হলে খালেদা জিয়া গ্রেপ্তারের পরে আপনারা যে গণ অভ্যুত্থানের আশা করেছিলেন তা তো কর্পুরের মতন উড়েগেল। এমন কি বিএনপির যে ৫শ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি আছে তারাও রাস্তায় নামেনি খালেদার মুক্তির জন্যে।

এ সময় তিনি বিএনপির তীব্র সমালোচনা করে বলেন, তাদের ৭ ধারাতেই বিএনপিকে ধরা যাবে। এই ৭ধারা বাদ দেওয়ার মাধ্যমেই বিএনপির মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে।

মেশিনগানের ও বর্জপাতের মতন সময়ে রজনিগন্ধা ও জুঁইফুলের গান গেয়ে লাভ নেই মন্তব্য করে বলেন, আর ৫ থেকে ৬ মাস পরে নির্বাচনের সিডিউল ঘোষণা করবে। তাই এখন সংবিধানের বাইরে যাওয়া সম্ভব নয়। অন্য বিশ্বে যেভাবে নির্বাচন হয়, ঠিক সেভাবে বাংলাদেশেও নির্বাচন হবে।

ছাত্রলীগ নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগকে নতুন মডেল নেতৃত্বে বিকাশ করার জন্য নির্দেশনা আছেন নেত্রীর। আপনারা একটু অপেক্ষা করুন।

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এইচ টি ইমামের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো আলোচনা করেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড.মোহাম্মদ ফরাশ উদ্দিন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, আ’লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ড.হাছান মাহমুদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.সৈয়দ এলাহী পারভেজ প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/এসএস