দেশের তথ্যপ্রযুক্তির বড় আসর আজ থেকে শুরু

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আজ বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে দেশের তথ্যপ্রযুক্তির বড় আসর ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭’। সকালে এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ মন্ত্রিপরিষদের বেশ কয়েক সদস্যও উপস্থিত থাকবেন।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবট ‘সোফিয়ার অংশগ্রহণে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক বড় আসর ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড -২০১৭ জমজমাট হবে বলে মনে করছেন অনেকে। ডিজিটাল এই মেলায় অংশ নেয়ার উদ্দেশ্যে সোমবার মধ্যরাতে ঢাকায় পৌঁছায় সোফিয়া। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে একটি পাঁচ তারকা হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

উদ্বোধনের পর রোবট সোফিয়ার সঙ্গে কথা বলার সুযোগ থাকবে। সে ধারাবাহিকতায় বেলা আড়াইটা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে থাকবে ‘সোফিয়া’। খ্যাতনামা হলিউড অভিনেত্রী অড্রে হেপবার্নের চেহারার আদলে হংকংভিত্তিক কোম্পানি হ্যান্সন রোবোটিক্সের তৈরি ‘সোফিয়া’ মানুষের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি প্রশ্নেরও জবাব দিতে পারে। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে ‘টেক টক উইথ সোফিয়া’ শিরোনামের এক অনুষ্ঠানে প্রায় দুই হাজার দর্শনার্থী তাকে দেখার সুযোগ পাবেন বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের। তিনি আরো জানান, সবাই প্রশ্ন করার সুযোগ পাবেন না, মোটামুটি ১০ থেকে ১৫টি প্রশ্ন নেবে সোফিয়া।

এ সময় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক উপস্থিত থাকবেন; শেষ পর্বে সোফিয়ার নির্মাতা ডেভিড হ্যান্সন বক্তব্য দেবেন। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং গ্রে অ্যাডভার্টাইজিং বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনায় রোবট সোফিয়া ঢাকায় এসেছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের বলেন, বাংলাদেশে তৈরি প্রযুক্তি পণ্য সেবার চমৎকার কিছু আয়োজন উপস্থাপিত হবে সম্মেলন প্রাঙ্গণে। দেশীয় উদ্যোগ ও প্রতিষ্ঠান ছাড়াও সরকারি-বেসরকারি তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক নানা উদ্যোগ প্রদর্শিত হবে। তথ্যপ্রযুক্তি সেবা ও পণ্য প্রদর্শনী, সেমিনার, সম্মেলনসহ নানা আয়োজন থাকবে। সম্মেলনের প্রদর্শনীগুলোকে কয়েকভাগে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে সফটওয়্যার, ই-গর্ভন্যান্স, ই-কমার্স, গেমিং, ইনোভেশন ও রোবোটিকস, স্টার্টআপ, মোবাইল ইনোভেশন ও মেড ইন বাংলাদেশ জোন। থাকবে মিনিস্ট্রিয়াল, ডেভেলপার ও আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প শীর্ষক বেশ কয়েকটি বড় সম্মেলন।

তিনি আরো বলেন, কনফারেন্স ছাড়াও চারদিন ব্যাপী এই আয়োজনে চলমান বিভিন্ন সেমিনার ও সেশনে অংশ নেবেন তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ ও নীতিনির্ধারকরা। সম্মেলনের এসব সভা ও সেমিনারে যোগ দিতে আমেরিকা, মালয়েশিয়া, জেনেভা, সিঙ্গাপুর, ভারত, জার্মানি ও ডেনমার্ক থেকে যোগ দিয়েছেন ২৮ জন প্রযুক্তিবিদ। এ ছাড়া থাকবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের অংশগ্রহণে তিনটি সেশন। উদ্বোধনী দিনে সেলিব্রেটি হলে অনুষ্ঠিত হবে গেমিং কনফারেন্স।

প্রথম দিনে যা যা রয়েছে: দুপুর আড়াই থেকে সাড়ে ৪টা এবং সাড়ে ৫টা থেকে সাড়ে ৭টার মধ্যে রয়েছে টেক টক উইথ সোফিয়া, ফিউচার অব হেলথ কেয়ার নিড সল্যুয়েশন, ক্লাউড সার্ভিসেস ফর ই-কর্মাস এন্ট্রাপ্রেনিউরস, গেমিং কনফারেন্স, ওমেন ইন ডিজিটাল ইকনোমি, ব্রডব্যান্ড ফর অল, গ্রো ইয়োর বিজনেস ইউজিং ফেসবুক, সাইবার সিকিউরিটিসহ আরো নানা সেশন অনুষ্ঠিত হবে

ফেসবুক ব্যবহারে ব্যবসা বৃদ্ধি: ‘গ্রো ইয়োর বিজনেস ইউজিং ফেসবুক/ক্লাউড সার্ভিস ফর দ্য ই-কমার্স এন্ট্রাপ্রেনিউরস’ শিরোনামের একটি পর্ব অনুষ্ঠিত হবে উদ্বোধনী দিনে। বিকেল পাঁচটায় শুরু হবে দুই ঘণ্টার এই পর্ব। এতে ফেসবুক ব্যবহার করে কীভাবে ব্যবসার প্রসার করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা হবে। এ ছাড়া বর্তমানে যারা ফেসবুক ব্যবহার করে ব্যবসা করছেন, এ বিষয়ে তাদের কোনো সমস্যা থাকলে তা তুলে ধরা যাবে এতে। পাশাপাশি ক্লাউড সেবার মাধ্যমে ই-কমার্স সম্প্রসারণ নিয়েও আলোচনা করা হবে।

গেম নিয়ে হবে আলোচনা: স্মার্টফোনের গেম নিয়ে আলোচনাভিত্তিক একটি পর্ব রয়েছে এবারের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে। আর তা অনুষ্ঠিত হবে মেলার প্রথম দিনেই। বেলা আড়াইটায় শুরু হয়ে এই পর্ব চলবে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত। গেমিং শিল্পে বর্তমান ও ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার এবং মোবাইল অ্যাপ ও গেম মনিটাইজেশনের সুবিধা ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা হবে এতে। মূল আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে অ্যাংরি বার্ডসের গেম উন্নয়ন কর্মকর্তা লরি লুকার। তিনি বর্তমান বাজারে কোন ধরনের গেমের চাহিদা বেশি এবং কেমন গেম বানালে তা ভালো হবে, সে বিষয়ে আলোচনা করবেন। এ ছাড়া গেম বানায়, এমন দেশীয় প্রতিষ্ঠানের ডেভেলপাররাও উপস্থিত থাকবেন।

শোনা যাবে নাফিসের গল্প: ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে নিজের জীবনের কথা তুলে ধরবেন প্রথম অস্কার বিজয়ী বাংলাদেশি নাফিস বিন যাফর। দু’বার কারিগরি অস্কার পুরস্কার পাওয়া নাফিস ৭ ডিসেম্বর বেলা আড়াইটা থেকে সাড়ে চারটা পর্যন্ত দর্শকদের শোনাবেন তার ওঠে আসার গল্প।

কীভাবে তিনি শুরু করেছিলেন, তার কাজের ধরণ এবং কী প্রতিবন্ধকতা ছিল এসব কথা জানা যাবে ‘মিট দ্য নাফিস বিন যাফর-দ্য একাডেমি উইনার’ শিরোনামের পর্বে।

স্টার্টআপ বাংলাদেশ পর্ব: ‘স্টার্টআপ বাংলাদেশ’ নামে একটি পর্ব রয়েছে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের দ্বিতীয় দিনে। এতে দেশীয় উদ্যোক্তারা নিজেদের সমস্যার কথা তুলে ধরতে পারবেন। তারা উত্তর পাবেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে। পাওয়া যাবে বিভিন্ন নির্দেশনাও।

প্রোগ্রামিং ও ডেভেলপার সম্মেলন: মাধ্যমিক পড়ুয়া প্রোগ্রামারদের অংশগ্রহণে হবে ‘হাইস্কুল প্রোগ্রামার কনফারেন্স’। এতে সারা দেশ থেকে আগত খুদে প্রোগ্রামাররা অংশগ্রহণ করবে। তারা এতে তাদের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরবে। এটি হবে ৭ ডিসেম্বর। এ ছাড়া ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সম্মেলনে দেশের ডেভেলপাররা অংশ নেবেন। তারা এতে তাদের সমস্যার কথা তুলে ধরার সুযোগ পাবেন।

মেলার সময়সূচি: প্রতিদিন মেলা চলবে সকাল নয়টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে কোনো প্রবেশ ফি নেই। তবে ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭’ এ যেতে চাইলে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। অবশ্য মেলা প্রাঙ্গণেও নিবন্ধন করার সুযোগ থাকবে।

মানবকণ্ঠ/আরএ