ত্বক এবং চুলের যত্নে ঘির উপকারিতা

ত্বক এবং চুলের যত্নে ঘির উপকারিতা

বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে ঘিয়ের উপকারিতা অসীম। দুধের চেয়েও ঘি হজমের শক্তি বেশি বাড়িয়ে দেয় বলে চিকিৎসকরা দাবি করেছেন। জ্বর থেকে সেরে ওঠার পর এনার্জি ফিরে পেতে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে ঘি। ঘিয়ের যে কত উপকারিতা, সেটা অনেকেই জানেন না। ঘি যতটা খাবারের স্বাদ বাড়ায়, ততটাই উপকারী ত্বক এবং চুলের জন্যও। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জিনিউজের স্বাস্থ্য বিষয়ক এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

শীতকালে সকলেরই অল্পবিস্তর ঠোঁট ফাটে। আর ঠোঁট ফাটলে আমরা বিভিন্ন কোম্পানির লিপ বাম ব্যবহার করি। তবে ঠোঁটকে আরো নরম এবং গোলাপি রাখতে ঘিয়ের জুড়ি মেলা ভার। অল্প একটু ঘি নিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে হালকা হাতে ঘষুন। তারপর ম্যাজিক দেখুন।

ঠোঁটের মতো চুলের সৌন্দর্য বাড়াতেও ঘি দারুণ উপকারী। চুলকে আরো চকচকে এবং নরম রাখে ঘি। এক চামচ নারিকেল তেলের সঙ্গে ২ চামচ ঘি নিয়ে চুল এবং স্কাল্পে ভালো করে লাগান। ৩০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তা ছাড়া চোখের নিচের কালি দূর করতেও সাহায্য করে ঘি। এক ফোঁটা ঘি নিয়ে চোখের চারপাশে ম্যাসেজ করুন। সারারাত রেখে সকালে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কয়েকদিন করলেই চোখের নিচে কালি দূর হবে। প্রতিদিন স্কাল্পে ঘি ম্যাসেজ করলে মাথায় রক্ত চলাচল ভালো হয় এবং চুল বাড়তে সাহায্য করে। ত্বকের জন্যও দারুণ উপযোগী ঘি। দুই চামচ ঘি হালকা গরম করে তাতে অল্প পানি মেশান। তারপর সেই মিশ্রণ সারা গায়ে এবং মুখে মাখুন। ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন আপনার ত্বক আরো সুন্দর ও মসৃন হয়ে উঠেছে।

মানবকণ্ঠ/এসএস