তারেক রহমানের বিচার ‍‍‍’স্টেট ‌‍স্পনসর্ড জাজমেন্ট’: রিজভী

তারেক রহমানের বিচার ‍‍‍'স্টেট ‌‍স্পনসর্ড জাজমেন্ট': রিজভী

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় গতকাল যে সাজা দেয়া হয়েছে তা ‘স্টেট স্পনসর্ড জাজমেন্ট হিসেবে বলে মন্তব্য করেছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন

রিজভী বলেন, বিএনপিকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করার জন্যই সরকারের বিশেষ ব্যক্তির ইচ্ছা পূরণের জন্য এই রায়। এই রায় উদ্দেশ্য প্রণোদিত এজন্য যে, একতরফা নির্বাচন করার জন্য এই রায় একটি কারসাজি। ২১শে আগষ্ট বোমা হামলা মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ফাঁসানোর জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে কি নির্মমভাবে ব্যবহার করা হয়েছিল। সে সম্পর্কে আপনাদেরকে ইতোপূর্বে অবহিত করেছি। হাত-পায়ের নখ তুলে নিয়ে অকথ্য শারীরিক নির্যাতনের মাধ্যমে সম্পূরক জবানবন্দী নেয়া হয়েছিল।

মুফতি হান্নান দাবী করে বলেন, ব্যাপক নির্যাতন করে সিআইডির লিখিত কাগজে তার সই আদায় করা হয়েছে। এ বিষয়ে গত ২০১১ সালের ২৮ নভেম্বর কটি জাতীয় পত্রিকায়- ‘সম্পূরক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন মুফতি হান্নানের’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছে, ২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমান, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ বিএনপি-জামায়াত নেতাদের জড়িয়ে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন মুফতি হান্নান। ২০১১ সালের ২৭ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক শাহেদ নুরউদ্দিন এর কাছে এই আবেদন করেন হরকাতুল জেহাদ (হুজি) নেতা মুফতি হান্নান।

রিজভী আরো বলেন, বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোকে নিশ্চিহ্ন করার জন্যই কারো ইচ্ছা পূরণে গতকাল এই রায় দেয়া হয়েছে। কিন্তু জনগণ এই রায় প্রত্যাখান করেছে। এই রায়ের প্রতিবাদে তাৎক্ষণিভাবে সারাদেশে বিক্ষোভ করেছে বিএনপিসহ সাধারণ জনগণও।

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহাকে বন্দুকের জোড়ে তাড়িয়ে দেয়া এবং সঠিক বিচার করতে গিয়ে জেলা জজ মোতাহার হোসেনকে দেশ ছাড়তে হয়েছে। সুতরাং গতকাল আদালত যদি সঠিক রায় দিতো তাহলে তাকেও দূর্ভাগ্য বরণ করতে হতো।

সম্প্রতি লক্ষীপুরে এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম হত্য মামলার ফাঁসির দণ্ড পাওয়া আসামীরা রাষ্ট্রপতির ক্ষমা পাওয়ার প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, প্রকাশ্যে খুন করে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা রাষ্ট্রপতির ক্ষমা নিয়ে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তথ্যমতে এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন কারাগার থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে বিশেষ ক্ষমতায় অন্যান্যদের মধ্যে প্রায় ৬ হাজারের মতো ভয়ঙ্কর আসামীদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, সরকার এবং সরকার নিয়ন্ত্রিত বিচার প্রক্রিয়া দুষ্টকে পালন করারই দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। সুতরাং যতদিন এই ভোটারবিহীন সরকার ক্ষমতায় থাকবে ততদিন কেউ ন্যায়বিচার পাবে না বলেই জনগণ মনে করেন তিনি।

মানবকণ্ঠ/এসএ

Leave a Reply

Your email address will not be published.